প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি জাতীয় স্বার্থের পরিপন্থী : মন্ত্রী গিরিরাজ

মাছুম বিল্লাহ: বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিকদেশ ভারতের গণতন্ত্র সুরক্ষিত রাখতে হিন্দুদের সংখ্যাগুরু থাকাটা একান্তই দরকার। এখানে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধিও জাতীয় স্বার্থের পরিপন্থী বলে মনে করেন ভারতের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহ।

ভারতের জনঘনত্বের পরিবর্তন জাতীয়তাবাদের পক্ষে অত্যন্ত বিপজ্জনক বলে দাবি করেছেন মোদি সরকারের এই মন্ত্রী। গিরিরাজ সিংহ আরও জানিয়েছেন যে ভারতের সংখ্যাগুরু সম্প্রদায় সংখ্যালঘু হওয়ার পথে হাঁটলে সামাজিক ঐক্য ও জাতীয় উন্নয়ন থমকে যাবে।

ভারতের সার্বিক উন্নতির স্বার্থে পরিবার পরিকল্পনার পক্ষে অবস্থান নিয়ে মন্ত্রী গিরিরাজ জাতীয় স্বার্থে এখনই পরিবার পরিকল্পনা আইন প্রণয়ন করার দাবি জানান।

তিনি বলেন, দেশভাগের পর এ ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে অথচ পাকিস্তান ও বাংলাদেশে কার্যত নিশ্চিহ্ন হিন্দুরা।
ভারতে মুসলমানদের সংখ্যা বৃদ্ধি দেশের পক্ষে বিপজ্জনক বলেও মন্তব্য করে তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশ, আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও কেরলের ৫৪টি জেলায় হিন্দুরা সংখ্যালঘু। এই বৈপরীত্য ভারতের একতা এবং অখ-তাকে সঙ্কটে ফেলবে।

একইসঙ্গে তার আরও দাবি, ‘ভারতের সকল জায়গায় হিন্দুদের সংখ্যা কমেছে, সেখানেই সামাজিক ঐক্যের ক্ষয় হয়েছে, সঙ্কটে পড়েছে জাতীয়তাবাদ।’

অযোধ্যায় রাম মন্দির নিয়ে তিনি বলেন, হিন্দু-মুসলিম সকল সম্প্রদায় একত্রিত হয়ে রাম মন্দির নির্মাণে এগিয়ে আসবে। রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়ে সহমত পোষণ করেছে মুসলিম শিয়া সম্প্রদায়। খুব শীঘ্রই সুন্নিরাও একমত হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। কারণ শিয়া, সুন্নি এবং হিন্দু সকলেই রামচন্দ্রের বংশধর।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ