প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কৃষক নয়, রাজস্ব আদায়ে গ্রামীণ অর্থনৈতিক কেন্দ্রগুলোর কথা ভাবছে এনবিআর

জাফর আহমদ: গ্রামের কৃষকের ওপর কর বসানোর কথা ভাবছে না রাজস্ব বোর্ড। বরং গ্রামীণ অর্থনৈতিক বিকাশ কেন্দ্রগুলোতে রাজস্ব আদায়ের পরিধি বাড়ানোর কথা ভাবছে। এ জন্য প্রয়োজনীয় আইন তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে আয়কর মেলা পরবর্তি গণমাধ্যমের সম্পাদকদের সাথে মতবিমিয় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে ফাইনান্সিয়াল এক্সপ্রেস এর সম্পাদক মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, রাজস্ব বোর্ড এখনো পুরোপুরি কর বান্ধব পরিবেশ হতে পারেনি। এ কারণে বাংলাদেশ থেকে সব চেয়ে বেশি টাকা পাচার হয়েছে বলে পানামা পেপার্স ও প্যারাডাইস পেপার্সে উল্লেখ করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত যা হয়েছে গণমাধ্যম কর্মীদের কল্যানে কিছু মানুষের কাছে করের বিষয়টি পৌছেছে। পুরো দেশের মানুষকের কাছে উৎসবের আমেজে করের বিষয়টি পৌছে দিতে হবে। এর জন্য গ্রাম পর্যন্ত যেতে হবে।

মানব জমিন সম্পাদক মতিউর রহমান চৌধুরী বলেন, গ্রামে অনেক মানুষ আছে যারা কর দেওয়ার যোগ্য। কিন্তু তাদের করের আওতায় আনা যায়নি। রাজস্ব বোর্ডের কর আদায়ের পরিধি গ্রাম পর্যন্ত বাড়াতে হবে। কর আন্দোলন গ্রাম পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার অংশ হিসাবে পৌষ মেলাতে এলাকার সব চেয়ে বেশি করদাতাদের সম্মাননতার মাধ্যমে মানুষের কাছে পৌছে দিতে হবে। এর মাধ্যম গ্রামের মানুষ কর দেয়ায় উৎসাহিত হবে।
বড় বড় বেসরকারি স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের বেশি বেশি বেতন দেওয়া হয়। তাদের করের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসলিমা হোসেন। তিনি বলেন, নভেম্বর মাস এলে কর দিতে নাভিঃশ্বাস উঠে। যারা কর দেওয়ার যোগ্য তাদের করেরর আওতায় আনতে হবে। সঞ্চয়পত্রে সুদের উপর উচ্চমাত্রার কর আরোপ না করার আহবান জানান তাসলিমা হোসেন।

কৃষককের উপর করারোপের প্রস্তাবনার তীব্র প্রতিবাদ করেন চ্যানেল আই-এর বার্তা প্রধান ও পরিচালক শাইখ সিরাজ। জবাবে কৃষক ও কৃষির উপর কর না বসানোর প্রতিশ্রুতি দেন এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর ররহমান।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ