প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জিম্বাবুয়েতে সেনা অভ্যুত্থান

সজিব সরকার: জিম্বাবুয়েতে গতকাল মধ্যরাত সেনা অভ্যুত্থান ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সেনাবাহিনী ব্যারাক ছেড়ে রাজধানী হারারে সহ বড় বড় শহরগুলোতে সশস্ত্র অবস্থান নিয়েছে। যদিও সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে অভ্যুত্থানের বিষয়টি অস্বীকার করে ‘পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে’ বলে জানানো হয়েছে।
‘জিম্বাবুয়ে সেনাবাহিনী অপরাধীদের ধরার লক্ষ্যে মাঠে নেমেছে এবং তারা সরকারের কোন ক্ষতি করবে না,’ জিম্বাবুয়ের একজন সামরিক সদস্য বুধবার জিম্বাবুয়ে জাতীয় সম্প্রচার মাধ্যম (জেটবিসি) কে এ কথা জানান। প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে সুরক্ষিত আছেন বলেও জানান তিনি।
সেনাবাহিনীকে বুধবার সকাল থেকে হারারের বিভিন্ন রাস্তায় সশস্ত্র অবস্থান নিতে দেখা গেছে বলে স্থানীয়রা জানায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম; ফেসবুক-টুইটারে স্থানীয়দের তোলা ভিডিওতে দেখা যায় ট্যাঙ্ক, আর্মাড কারসহ ভারি যুদ্ধযান বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান করছে।
বিশেষ করে প্রেসিডেন্ট মুগাবের বাড়ির আশেপাশে গোলাগুলির আওয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। সেনাবাহিনী থেকে একটি বিবৃতিতে বলা হয়, ‘প্রেসিডেন্ট এবং তার পরিবার সুরক্ষিত আছে। তার আশেপাশে যারা বিভিন্ন অপরাধে লিপ্ত আছে আমরা শুধুমাত্র তাদেরকে লক্ষ্য করে মাঠে নেমেছি। আশা করি খুব শীঘ্রই দেশের অবস্থা স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।’
একটি সরকারী সূত্র মতে, সেনাবাহিনী অর্থমন্ত্রী ইগনাতিয়াস চম্বোকে বুধবার গ্রেফতার করেছে এবং জেটবিসি তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। হারারেতে মার্কিন অ্যাম্বাসি বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে অ্যাম্বাসি কর্তৃপক্ষ। এছাড়া হারারেতে বসবাসরত মার্কিন অভিবাসিদের নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করার জন্য আহ্বান জানিয়েছে তারা।
উল্লেখ্য, এর আগে প্রেসিডেন্ট মুগাবে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্টকে বরখাস্ত করেছিলেন। জেনারেল কন্সটান্টিনো চিউয়েংগা মুগাবের এমন সিদ্ধান্তের ব্যাপারে প্রশ্ন তুলেছিলেন। বিবিসি ও রয়টার্স

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ