প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শীতকাল হওয়ায় চরম দুর্ভোগে ইরান-ইরাক সীমান্তে ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তরা

ফারমিনা তাসলিম: ইরান-ইরাকে সীমান্তে ভয়াবহ ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত চারশ’রও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অসংখ্য মানুষ। নিহতদের মধ্যে সৈন্য এবং সীমান্তরক্ষী বাহিনীও রয়েছে।

ভূমিকম্পটি চলতি বছরে পৃথিবীর ভয়াবহতম ভূমিকম্প হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।ভূমিকম্পের প্রকোপে অধিকাংশ ভবন ভেঙ্গে পড়ায় অসংখ্য মানুষকে খোলা আকাশের নিচে পার্ক-রাস্তায় অবস্থান করতে হচ্ছে। শীতকালের কারণে ঠান্ডায় খোলা আকাশের নিচে রাত্রিযাপনে তাদের ‍দুর্ভোগ আরও বেড়েছে। সূত্র- বিবিসি বাংলা।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের বরাত দিয়ে বিবিসি বাংলার খবরে বলা হয়েছে, এখনো ভূমিকম্পে ভেঙে পড়া ভবনগুলোতে উদ্ধার কাজ অব্যহত রেখেছে উদ্ধারকারী দল। তবে ব্যাপক ভূমিধ্বসের কারণে উদ্ধার কাজে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হচ্ছে এবং গ্রামীণ এলাকায় পৌঁছাতে উদ্ধারকারী দলের বেগ পেতে হচ্ছে।

ভূমিকম্পে একটি বাধ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সেটি হয়তো যেকোন সময় ভেঙে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বাধের আশপাশে বসবাসরত মানুষদের অন্যত্র সরে যাওয়ারও নির্দেশনা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। বিভিন্ন স্থানে বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

ভূমিকম্পে যারা নিহত হয়েছেন তাদের বেশিরভাগই ইরানের সীমান্ত থেকে মাত্র ১০ মাইল দূরে অবস্থিত পশ্চিমাঞ্চলের শহর সারপোল-ই জাহাব এবং কেরমানশাহ প্রদেশের বাসিন্দা। সারপোল-ই জাহাব শহরের প্রধান হাসপাতালটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এতে আহতদের চিকিৎসা দিতে এটি হিমশিম খেতে হচ্ছে বলেও জানিয়েছে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন।

রেডক্রিসেন্টের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ইরানের সরকারি হিসাব অনুযায়ী, ভূমিকম্পে অন্তত চারশ তের জন নিহত হয়েছেন। অন্যদিকে ইরাকেও নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে অন্তত নয় জন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ