প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হারাতে গিয়ে হেরে গেলেন না তো মাননীয়?

মাহমুদুল হাসান রতন:আওয়ামীলীগ বাংলার নীপিরিত মানুষের অধিকার আদায়ের রাজনৈতিক সংগঠন। আওয়ামীলীগ মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারীসহ অন্যায়ের প্রতিবাদকারী সংগঠন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। এই সংগঠনটি কারও বাপ দাদার সম্পত্তি নয় যে, যেমনে খুশি ব্যবহার করে দলের কলংক বয়ে আনবেন। আজ যারা দলের ছাদর গায়ে জড়িয়ে ক্ষমতাসিন হয়েছেন তারা একাত্তর ও পচাত্তরের পরে কোথায় ছিলেন? আজ যারা দলের সুসময়ের নিবেদিত প্রান আসলেই কি তারা তাই? তাই যদি না হয় তাহলে তারা কারা? তারা যদি পচাত্তরের কুশিলব হয় আজ যারা ক্ষমতাসিন দলের শাসক। তাদের ক্ষমতার চাবুকের আঘাতে ত্যাগীরা আজ নিষ্পেষিত। কিন্তু কেন এই অত্যাচার ? অন্যায়ের প্রতিবাদ করা যদি অপরাধ হয় তাহলে তারা অপরাধী। আপনার দ্বারা জামায়াত বিএনপিকে চাকুরী দিয়ে পূর্নবাসন করার বিরুদ্বে সোচ্চার হওয়া যদি অপরাধ হয় তাহলে তারা অপরাধী। আপনার সকল অপকর্মের বিরুদ্ধে কথা বলা যদি অপরাধ হয় তাহলে অপরাধী। তার জন্য ফাসির কাষ্টে ঝুলতে প্রস্তুত। কিন্তু মাননীয় সাংসদ আপনার স্বচ্ছতার প্রমান যদি একটি বার উপজেলাবাসিকে দেখাতেন? তাহলে গর্ববোধ হত। কিছুদিন আগে প্রতি পক্ষকে ঘায়েল করার জন্য মানববন্ধন খেলায় নেমে আপনি পরাজিত হয়েছেন। এতে শিক্ষক সমাজসহ সাধারন শিক্ষার্থীরাও আপনার কাছ থেকে রেহাই পায়নি, কোমলমতি শিশুদেরও ব্যাবহার করেছেন আপনার রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিল করার জন্য। সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্তৃপক্ষকে কাজে লাগিয়ে এমন সুযোগও আপনি কিন্তু হাত ছাড়া করেননি। এসব নেতিবাচক কর্মকান্ডকে ইতিবাচক রুপ দিয়ে প্রচারের জন্য আমাদের মাঝে কিছু ডোমেস্ট্রিক সাংবাদিকতো রয়েছেই। জনমত বিচ্ছিন্নতা ডাকার জন্য উদ্ভোধন নয় সাম্প্রতিক ভিত্তি প্রস্তরের সাইন বোর্ড লাগিয়ে বিভিন্ন ট্রান্সপোর্ট দিয়ে বহিরাগত জনবল ব্যাবহার করে প্রতিপক্ষকে হারাতে গিয়ে আবার নিজেই হেরে গেলেন না তো? হাজার পাচেক জনবল জমায়েত করে কি জনমত প্রকাশ হয়? তাও আবার আকাশে ড্রোন ক্যামেরা উড়িয়ে ভিডিও স্লিপ কি হাই কমান্ডের কাছে পৌছাবে? না কি এলাকার চায়ের স্টলে সিডি পর্যন্তই সৗমাবদ্ধ থাকবে? সাজ সজ্জায় সজ্জিত ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন এ যেন উপজেলা বাসির চোখে রঙ্গিন চশমা লাগানোর তাকমা। জনমত প্রকাশের নতুন কৌশল ব্যাবহার করে পারবেন কি অধিষ্ঠিত জায়গায় নিজেকে ধরে রাখতে এমনি প্রশ্ন খোজে পাওয়া যায় সাধারন মানুষের কাছে মাননীয় সাংসদ ১৬১ নেত্রকোণা-৫।

লেখক: মাহমুদুল হাসান রতন
স্টাফ রির্পোটার
আমাদের অর্থনীতি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ