প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভূমিকম্প নিয়েও কাজ করবে আবহাওয়া অধিদফতর

এম এ আহাদ শাহীন : আবহাওয়া-সংক্রান্ত সব ধরনের পূর্বাভাস, জলবায়ু প্রক্ষেপণ ও পর্যবেক্ষণের ক্ষমতা আবহাওয়া অধিদফতরের কাছে থাকবে। একই সঙ্গে আবহাওয়া অধিদফতর ভূমিকম্প (মাত্রা পরিমাপ), বন্যা এবং সুনামি নিয়েও কাজ করবে। এসব কাজ দেখভালের জন্য সংস্থাটি বিভিন্ন পর্যবেক্ষণ নেটওয়ার্ক স্থাপন করবে। এমন বিধান রেখে ‘আবহাওয়াবিষয়ক আইন-২০১৭’-এর খসড়া চূড়ান্ত করেছে প্রতিরক্ষাবিষয়ক মন্ত্রণালয়।

আইনটির চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিতব্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে উপস্থাপন করা হতে পারে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগে গত বছরের ২২ আগস্ট এ আইনটির খসড়ার নীতিগত অনুমোদ দেয় মন্ত্রিসভা। ওইদিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছিলেন, আবহাওয়ার বিষয়ে নতুন করে একটি আইন করা হচ্ছে। এতদিন পর্যন্ত আবহাওয়ার কোনো আইন ছিল না। প্রশাসনিক আদেশে এটা (আবহাওয়া অধিদফতর) চলছে। এটার সঙ্গে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার (ডব্লিউএমও) একটা সংযোগ আছে। কিন্তু আমাদের কোনো আইন নেই।

আবহাওয়া অধিদফতর, মহাপরিচালক ও অন্যান্য কর্মচারীর ব্যবস্থাপনা এগুলো আইনের কাঠামোতে নিয়ে আসা হচ্ছে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

সূত্র জানায়, আবহাওয়া অধিদফতর প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি বিশেষায়িত আবহাওয়া ও জলবায়ু গবেষণা প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশে আবহাওয়াবিষয়ক কোনো নির্দিষ্ট আইন নেই। জলবায়ু পরিবর্তন, সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতাবৃদ্ধি, বিশ্বব্যাপী উষ্ণতা বৃদ্ধি এবং আবহাওয়ার বিরূপ প্রভাব মোকাবেলার জন্য একটি আবহাওয়াবিষয়ক আইন গুরুত্বপূর্ণ। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলা করার জন্য সক্ষমতা ও দক্ষতা বাড়াতেই আবহাওয়া আইনের খসড়া করা হয়েছে।

এর জন্য বিভিন্ন দেশের আবহাওয়া আইন পর্যালোচনা করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক কনভেনশন ও প্রটোকল বিশ্লেষণ করা হয়েছে। এরপর বিভিন্ন অধিদফতর, দফতর ও সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করে আইনের খসড়া করা হয়েছে।

খসড়ায় আছে, আবহাওয়া অধিদফতর ভূমিকম্প, ভূমিকম্পজনিত বন্যা, জলোচ্ছ্বাস, সুনামি, অগ্ন্যুৎপাতের তথ্য জারি করবে। জলবায়ু এবং জলবায়ুগত পরিবর্তনসংক্রান্ত তথ্য সংরক্ষণ করবে।

জলবায়ুসংক্রান্ত যে কোনো কার্যক্রম গ্রহণ করলে তা আবহাওয়া অধিদফতরকে জানাতে হবে। সংস্থাটি দেশব্যাপী জলবায়ুগত জরিপ ও জোনিংয়ের দায়িত্ব পালন করবে। জলবায়ু পর্যবেক্ষণ, বিশ্লেষণ ও মূল্যায়ন করে নিয়মিত জলবায়ুর অবস্থার ওপর বুলেটিন প্রকাশ করবে। এখনই আবহাওয়া অধিদফতর পূর্বাভাসের দায়িত্ব পালন করে।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সরকারের অনুমতি ছাড়া কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান জলবায়ুসংক্রান্ত সতর্কবার্তা প্রদান করতে পারবে না। এ সংক্রান্ত সতর্ক বার্তা প্রকাশ করলে তার শাস্তি কী তা আইনে বলা হয়নি। এটা খসড়া আইনের অন্যতম দুর্বল দিক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ