প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজশাহীর প্রথম জয়
ভুল শুনেছিলেন মাশরাফি!

ডেস্ক রিপোর্ট : এবারের বিপিএল-এ প্রথমবারের মতো টস জিতে ব্যাটিং বেছে নিতে দেখা গেল কোনো অধিনায়ককে। তবে ম্যাচ শেষে এর যথার্থতা দেখাতে পারলো না রংপুর রাইডার্স। আর রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা হার শেষে দিলেন ভিন্ন ব্যাখ্যা। চলতি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগে (বিপিএল) প্রথম জয়ের স্বাদ নিলো রাজশাহী কিংস। গতকাল রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ১৩৫ রানের টার্গেটে ২০ বল অব্যবহৃত রেখে ৮ উইকেটে জয় কুড়ায় তারা। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে এদিন পিচ থেকে সহায়তা পেতে দেখা যায় পেসারদের।

আর হার শেষে রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ‘টস জিতলে কোচ আমাকে ব্যাটিং না বোলিং নিতে বলেছিলেন শুনতে একটু ভুল হয়েছিল আমার। আমি শুনেছিলাম ব্যাটিং। তবে এমন উইকেট আগে বোলিং নেয়াই উচিত ছিল।’

বিপিএল ইতিহাসে ১০ উইকেটে হারজিতের ঘটনা দেখা গেছে মাত্রই দুইবার। গতকাল ম্যাচের একপর্যায়ে মনে হচ্ছিল এবার দেখা যাবে তেমনটি। কিন্তু দুই রান নিতে গিয়ে উইকেট বিসর্জন দেন লেন্ডল সিমন্স। এতে ভাঙে রাজশাহীর ওপেনিংয়ে ১২৩ রানের জুটি। ব্যাট হাতে অর্ধশতক হাঁকান মুমিনুল হক ও ক্যারিবীয় ওপেনার লেন্ডল সিমন্স। ব্যক্তিগত ৫৩ রানে রানআউটে সাজঘরে ফেরেন সিমন্স। চলতি বিপিএলে প্রথমবারের মতো খেলতে নেমে ৫০ বলের ইনিংসে সিমন্স হাঁকান চারটি বাউন্ডারি ও একটি ছক্কা। আর মুমিনুল হক খেলেন হার না মানা ৬৩ রানের ইনিংস। ৪৪ বলের ইনিংসে মুমিনুল হাঁকান ৪ বাউন্ডারি ও তিনটি ছক্কা। চলতি আসরে এটি জুটিতে শতরানের চতুর্থ ঘটনা। আসরে দু’বার এমন কৃতিত্ব দেখান সিলেট সিক্সার্সের থারাঙ্গা-ফ্লেচার জুটি। অপর কীর্তিটি ঢাকা ডায়নামাইটসের এভিন লুইস-ক্যামেরন ডেলপোর্ট জুটির। আসরের সিলেট পর্বের দুই ম্যাচেই হার দেখে রাজশাহী। ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি আসর বিপিএলে গতকাল টস জিতে ব্যাটিং বেছে নেন রংপুর রাইডার্স অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তবে শুরুতে স্বস্তি ছিল না রাইডার্সের। স্কোর বোর্ডে ৩ রান জমা করে প্রথম উইকেট খোয়ায় তারা।

আর দলীয় ৩৩ রানে খোয়ায় তৃতীয় উইকেট। ইনিংসে চতুর্থ ওভারে বল হাতে জোড়া আঘাত হানেন রাজশাহী কিংসের স্বদেশি পেসার ফরহাদ রেজা। একে একে সাজঘরে ফেরেন রংপুরের ক্যারিবীয় ওপেনার জনসন চার্লস, ইংলিশ ব্যাটসম্যান অ্যাডাম লিথ ও স্বদেশি তারকা মোহাম্মদ মিথুন। রংপুরের ইনিংসে একমাত্র অর্ধশতকটি আসে রবি বোপারার ব্যাট থেকে। ৫১ বলের ইনিংসে ৫৪ রানে অপরাজিত থাকেন রংপুর রাইডার্সের এ ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইংলিশ ব্যাটসম্যান। শাহরিয়ার নাফীস করেন ২৩ রান। চতুর্থ উইকেটে ৪৯ রানের জুটি গড়েন বোপারা-নাফীস। আর ১৩৪/৫ সংগ্রহ নিয়ে ইনিংস শেষ করে রংপুর রাইডার্স। রাজশাহী কিংসের বল হাতে ৪ ওভারের স্পেলে ২৮ রানে দুই উইকেট নেন স্বদেশি পেসার ফরহাদ রেজা। আর ইনিংসের শুরুতে বল হাতে নেয়া অফস্পিনার মেহেদী হাসান চার ওভারের স্পেলে মাত্র ১৯ রানের নেন এক উইকেট। জবাবে ১৫.১তম ওভারের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে স্কোর বোর্ডে ১২২ রান জমা করেন মুমিনুল-সিমন্স। চলতি আসরে জুটিতে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড। এর আগে ঢাকা ডায়নামাইটসের বিপক্ষে ১২৫ রানের জুটি গড়েন সিলেট সিক্সার্সের ওপেনার উপুল থারাঙ্গা ও আন্দ্রে ফ্লেচার।

গতকাল খরুচে বোলারের ছবিটা ছিল লাসিথ মালিঙ্গার। ৩ ওভারের স্পেলে ৩০ রানে উইকেটশূন্য থাকেন রংপুর রাইডার্সের এ লঙ্কান পেসার। রংপুরের বল হাতে একমাত্র শিকারটি ছিল অপর লঙ্কান পেসার থিসারা পেরেরার। ব্যক্তিগত ৪ রানে সরাসরি বোল্ড হন রাজশাহী কিংসের জিম্বাবুইয়ান ব্যাটসম্যান ম্যালকম ওয়ালার। ক্ষিপ্র ফিল্ডিংয়ে সিমন্সকে রানআউট করেন পেরেরাই। আসরের সিলেট পর্বে প্রথম ম্যাচে জয় দিয়ে এবারের মিশন শুরু করে রংপুর রাইডার্স। তবে পরে টানা দুই ম্যাচে হার দেখলো তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত