প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পরীক্ষার্থী একজন, দায়িত্বে ১২ জন

ডেস্ক রিপোর্ট  : রংপুরের কাউনিয়ায় জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় একটি কেন্দ্রে কর্ম ও জীবনমুখী বিষয়ে পরীক্ষার্থী ছিল মাত্র একজন। আর পরীক্ষা উপলক্ষে কেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করেছেন ১২ জন। ওই পরীক্ষার্থীর নাম ওমর ফারুক। তার রোল নম্বর ৫৩৩৪০৩। সে লালমনিরহাট সদর উপজেলার হরিনচড়া তালপট্টি জুনিয়ার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। শনিবার উপজেলার দরদী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষায় অংশ নেয় ওমর ফারুক।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, ওই পরীক্ষাকেন্দ্রে শনিবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা একজন হলেও এর জন্য দায়িত্বে ছিলেন, সরকারি কর্মকর্তা (ইউএনওর প্রতিনিধি) একজন মৎস্য কর্মকর্তা, কেন্দ্রসচিব, সহকারী কেন্দ্রসচিব ও হল সুপারসহ তিনজন, দু’জন কক্ষ পর্যবেক্ষক (পরিদর্শক), একজন চিকিৎসক, একজন অফিস সহকারী, একজন যাচাই-বাছাইকারী, একজন খাতা বান্ডিংকারী, একজন পোস্ট অফিসের প্রতিনিধি ও পুলিশ। এছাড়া অন্যান্য দিনের মতো পরীক্ষা চলাকালে কেন্দ্রের আশপাশে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।

পরীক্ষাকেন্দ্রের কেন্দ্রসচিব ও দরদী দ্বিমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসফেকা বেগম বলেন, পরীক্ষার্থী একজন হলেও আয়োজন রয়েছে পুরোপুরি। দায়িত্বে কোনো কমতি করা হয়নি। যার যার দায়িত্ব সবাইকে পালন করতে হচ্ছে।

হল সুপার শাহীনুর রহমান বলেন, জেএসসি পরীক্ষার্থী ওমর ফারুক ২০১৬ সালে ফরম পূরণ করলেও সেবছর পরীক্ষায় অংশ নেয়নি। তাই তাকে এবছর অনিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে শনিবার কর্ম ও জীবনমুখী এবং আগামী ১৩ নভেম্বর শারীরিক শিক্ষা ও ১৮ নভেম্বর চারুকারু পত্রের পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। আর এই একজন পরীক্ষার্থীর জন্য আজকেসহ আরও দুইদিনেও সরকারি কর্মকর্তাসহ (ইউএনওর প্রতিনিধি) ১২ জন দায়িত্ব পালন করবেন।

তিনি বলেন, যেহেতু এবার জেএসসিতে নিয়মিত পরীক্ষার্থীদের কর্ম ও জীবনমুখী, শারীরিক শিক্ষা ও চারুকারু পত্রের লিখিত পরীক্ষা নেই। সেহেতু ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইচ্ছা করলেই ওমর ফারুককে নিয়মিত পরীক্ষার্থী হিসেবে ফরম পূরণ করাতে পারতেন। তাহলে একজন পরীক্ষার্থীর তিনদিন সরকারের টাকা ব্যয় হতো না।  উৎসঃ জাগোনিউজ