প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চর দখল করে দলীয় অফিস নির্মাণ!

ডেস্ক রিপোর্ট: অনেকেই সাতক্ষীরার প্রাণসায়ের খালের চর দখল করে ব্যবসা করছেন। এ কারণে তাঁতীলীগের কর্মীরা চর দখল করে দলীয় অফিস করছেন-এমনটাই মন্তব্য জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শেখ তৌহিদ হাসানের।

সাতক্ষীরা শহরের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত প্রাণসায়ের খালের চর দখল নিয়ে অভিযোগ উঠলে তিনি এ কথা বলেন।

শুক্রবার সাতক্ষীরা শহরের মার্কেট বন্ধ থাকে। এই সুযোগে গোপনে তাঁতীলীগের সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে চলে প্রাণসায়ের খালের চর দখল প্রক্রিয়া। সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল জলিলের বাড়ির সামনে খালের পূর্ব পাড়ে এ দখল প্রক্রিয়া সকালে শুরু হয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত অব্যহত থাকে। জায়গা দখলের কাজে নেতৃত্ব দেন জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি মীর আজাহার আলী শাহীন, সাধারণ সম্পাদক শেখ তৌহিদ হাসান ও আওয়ামী লীগ নেতা কুলিয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আসাদুল ইসলামের ছেলে সেলিম রেজা বাবু। এ প্রক্রিয়ায় তাঁতীলীগ পরিচয়দানকারী ১৫-২০ জন কর্মী অংশ নেয়।

এ সময় চর দখল করে ঘর নির্মাণে বাধা দিতে আসা এক ভূমি কর্মকর্তাসহ দুই কর্মচারি তাঁতীলীগের নেতা-কর্মীদের নিকট লাঞ্ছিত হয়েছেন।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার পৌর ভূমি সহকারি কর্মকর্তা কান্তি লাল সরকার জানান, উর্ধ্বতন কর্মকর্তার নির্দেশ পেয়ে শুক্রবার জুম্মার নামাজের আগে তিনি অফিস কর্মী সুরেন রায় ও আব্দুল গফুরকে নিয়ে তাঁতী লীগের সাইনবোর্ড টাঙিয়ে অবৈধ দখল ও নির্মাণে বাধা দেন। এ সময় সংগঠনটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ বেশ কয়েকজন কর্মী তাদেরকে উদ্দেশ্য করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। প্রতিবাদ করায় তারা তাদেরকে মারতে উদ্যত হন। অবস্থা বেগতিক দেখে তারা ফিরে আসতে বাধ্য হন। পরে বিষয়টি তিনি সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া আফরিনকে অবহিত করেন।

সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) সাদিয়া আফরিন জানান, সকালে পৌর সহকারি ভূমি কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে গিয়ে সাইনবোর্ড নামানোর পাশাপাশি অবৈধ নির্মাণ কাজ বন্ধ করে এসেছেন। এরপরও যদি তারা কথা না শোনেন, তাহলে আমরা পরবর্তী ব্যবস্থা নেবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ