প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাউজানে ইটভাটার মাটির জোগান দিতে কাটা হচ্ছে কৃষি জমি

কামরুল ইসলাম বাবু, রাউজান (চট্টগ্রাম): দেশের প্রচলিত আইনে ফসলি জমি ও পাহাড় টিলা থেকে মাটি কাটা নিষিদ্ধ থাকা স্বত্বেও প্রতিবছর শত শত একর ফসলি জমি ধংস করে ইটভাটার মাটির জোগান দিচ্ছে রাউজান সহ পার্শ্ববর্তী উপজেলার ইটভাটা গুলো। ভাটা প্রতিষ্ঠা করা যা না সংরক্ষিত বনাঞ্চলের কাছে ইট ভাটা করা নিষেধ থাকলেও এই সব আইন মানছেনা। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার লোকজনেরর নিরবতার কারণে এখানে প্রতিবছরই নতুন নতুন ভাটা সৃষ্টি করে ইট তৈরীর জন্য কৃষি জমি ও পাহাড় টিলা থেকে মাটি নেয়া হচ্ছে।
জানা যায়, রাউজান পৌর এলাকাসহ উপজেলার বিভিন্নস্থানে কমপক্ষে ৬০টি ভাটায় ইট পোড়ানো হয়। সবকটি ভাটায় ইট তৈরীতে মাটি জোগান দেয়া হয় পার্শ্ববর্তী কৃষিজমি ও পাহাড় টিলা মাটি কেটে। এরকম ইটভাটা রয়েছে নদী ও খাল পাড়ে। এসব ভাটায় মাটির জোগান দিতে দেখা যায় খাল নদীর পাড় কেটে।
সরেজমিনে পরিদর্শনে দেখা যায়, রাউজানের অনেক ইটভাটা রয়েছে সংরক্ষিত বনাঞ্চলের কাছাকাছি। এরকম ভাটা গুলোতে মাটির জোগান আসে পাহাড় টিলার মাটি ও কৃষিজমি থেকে। স্থানীয় জনসাধারণের সাথে কথা বলে জানা যায়, কোনো কোনো ইটভাটার কৃষিজমি থেকে মাটি সংগ্রহ করতে গিয়ে জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাঘাটও হুমকির মধ্যে ফেলেছে ভাটা মালিকরা।
রাস্তার পাশের জমি থেকে গভীর কুপ করে মাটি কাটতে গিয়ে ওসব রাস্তা ধসে পড়ার আশংকা মধ্যে আছে।
এই উদ্বেগজনক পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এলাকার সচেতন মহল। তারা অবিলম্বে কৃষি জমি ও পাহাড় খাল পাড় থেকে মাটি কাটা বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়েছে। সম্পাদনা: মোহাম্মদ আবদুল্লাহ মজুমদার

 

 

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ