প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমাদের মতো দেশে এতগুলো ব্যাংক কোনো প্রয়োজন নেই : ড. এ বি মির্জা আজিজুল ইসলাম

সাগর গনি : বর্তমানে দেশের ব্যাংক খাত অনেক দুর্বল হয়ে পড়েছে। বিশেষ করে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ও বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর অবস্থা বেশি নাজুক। সরকারি ব্যাংকগুলোতে এ রকম আর্থিক অবনতির ঘটনা পুরনো। কারণ সরকারি ব্যাংকগুলোতে বেশ কিছু অভ্যন্তরীণ দুর্বলতা রয়েছেÑ আমাদের অর্থনীতির সঙ্গে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন অর্থনীতিবিদ ড. এ বি মির্জা আজিজুল ইসলাম।
তিনি বলেন, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ব্যাংকগুলোতে রাজনৈতিক বিবেচনায় বেশিরভাগ নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে। বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানগুলোকে ঋণ দেওয়া এবং ঋণ পরিশোধের জন্য যে সকল প্রক্রিয়া থাকা দরকার, সেখানেও অনিয়ম করা হয়। এর পেছনেও মোটামুটিভাবে রাজনৈতিক সম্পর্ক কাজ করে। যার ফলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ঋণ খেলাপি হয়ে থাকে। এ সকল কারণেই মূলত ব্যাংকগুলোর আর্থিক অবস্থার অবনতি ঘটছে।
তিনি আরও বলেন, এ সকল বিষয় নিয়ন্ত্রণে আনতে হলে নিয়ন্ত্রণ করতে হবে রাজনৈতিক সমস্যা। ব্যাংকে নিয়োগের ক্ষেত্রে উপযুক্ত ব্যক্তিকেই নিয়োগ দেওয়া জরুরি। ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে ঋণ প্রদানকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের যথাযথ তথ্য জেনে ঋণ দেওয়া উচিত। বেশিরভাগ ব্যাংকের বড় বড় কর্মকর্তা রাজনৈতিক সদস্য হয়ে থাকেন, এ জায়গাগুলোতে পরিবর্তন আনতে হবে।
ব্যাংকিং খাত সম্পর্কে যে যাদের যথেষ্ট অভিজ্ঞতা রয়েছে সে সমস্ত ব্যক্তিদের বোর্ডের সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিতে হবে। সেই সঙ্গে ব্যাংকের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের, সেটা ম্যানেজিং ডিরেক্টর থেকে শুরু করে সর্বনি¤œ পর্যায় পর্যন্ত যারা রয়েছে তাদের কাজের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। ঋণ খেলাপির বিরুদ্ধে গৃহীত আইনানুগ ব্যবস্থা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই সুরাহা হয় না। এসব ক্ষেত্রে আইনগত ব্যবস্থা আরও সুদৃঢ় করতে হবে। এই সমস্যাগুলো সমাধান করতে পারলে ব্যাংক খাতের আর্থিক অবনতি কমিয়ে আনা সম্ভব। ব্যাংক খাতের এমন অবস্থার মধ্যেই আবার নতুন কিছু ব্যাংক অনুমোদনের জন্য তোড়জোড় শুরু করেছে। এ রকম অনুমোদনের সম্পূর্ণ বিরোধীতা করি। বিগত যে নয়টি ব্যাংককে অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল, তখনও আমি এর বিরোধীতা করেছিলাম। এখনও আমি নতুন ব্যাংক অনুমোদনের ক্ষেত্রে একই কথা বলব। কারণ আমাদের মতো দেশে এতগুলো ব্যাংকের কোনো প্রয়োজন নেই।
সম্পাদনা : আশিক রহমান ও মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত