প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাদ্রাসা নয়, আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত ছাত্ররাও জঙ্গি হচ্ছে : আইজিপি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক বলেছেন, ‘কোরআনের খ-িত ও ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে একটি গোষ্ঠী যুবকদের বিপথগামী করে জঙ্গি সৃষ্টি করছে। আগে বলা হতো মাদ্রাসার ছাত্ররা জঙ্গি তৎপরতার সঙ্গে জড়িত। এখন দেখা যাচ্ছে আধুনিক শিক্ষায় যারা শিক্ষিত বিশেষ করে ইংলিশ মিডিয়ামের ছাত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররাও জড়িয়ে পড়ছে।

বৃহস্পতিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ স্টেডিয়ামে জঙ্গিবাদ ও মাদকবিরোধী সমাবেশে এসব কথা বলেন আইজিপি শহীদুল হক। এর আগে আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক শিবগঞ্জ থানা ভবনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

শহীদুল হক বলেন, যারা জঙ্গি তৈরি করছে, জঙ্গি তৎপরতায় মদদ জোগাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কাউন্টার ব্যবস্থা নিতে হবে। জঙ্গি তৎপরতার বিরুদ্ধে পুলিশ কাজ করছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইন নিয়েও আমরা কাজ করছি। ধর্মীয় অনুঅনুভূতিতে আঘাত দেওয়া যেমন ঘৃণ্য কাজ তেমনই এ কারণে কাউকে হত্যা করার কথাও ইসলাম বলে না।

আইজিপি বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ ধর্ম ভীরু, কিন্তু ধর্মান্ধ নয়। জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ধর্মীয় নেতাসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে একযোগে কাজ করতে হবে।’

আইজিপি বলেন, ‘ব্লগারদের হত্য করা শুরু হয়েছিল। আমিই প্রথম ব্লগারদের বিরুদ্ধে কথা বলেছি। আমার নবীর বিরুদ্ধে, আমার ইসলামের বিরুদ্ধে ব্লগাররা যেভাবে বলেছে তা আমরা মানি না। এটা ব্লগারদের বলা হয়েছে। পাশাপাশি ব্লগার যদি কোনো অন্যায় করে, কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে, তাকে আপনি হত্যা করবেন? এটা কি ইসলাম বলেছে নাকি। কেউ যদি কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে তবে দেশে তো আইন আছে। আপনি অভিযোগ করেন, মামলা করেন। না হয় আমরা মামলা করব। আমরা কী ব্যবস্থা নেই সেটা দেখেন।’

আইজিপি আরো বলেন, ‘যতগুলো ব্লগারকে হত্যা করা হয়েছে। যতগুলো মামলা হয়েছে প্রত্যেকটি মামলা আমরা ডিটেকশন করেছি। আসামি গ্রেপ্তার করেছি।’

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টি এম মোজাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যদের মাঝে বক্তব্য দেন, সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানী, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব জিল্লার রহমান, সাবেক বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী এনামুল হক, চাঁপাইনবাবগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান এবং ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ