প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্যারাডাইস পেপারস কেলেঙ্কারিতে বিশ্ব প্রতিক্রিয়া

লিহান লিমা: প্যারাডাইস পেপার (রাজনীতিক, সেলিব্রেটি ও বিত্তশালী মানুষের অর্থনৈতিক লেনদেন ও মালিকানা সংক্রান্ত কেলেঙ্কারি) ফাঁস হওয়ার পর বিশ্বের ৪৭টি দেশের ১২৭ জন রাজনীতিক এবং সরকারি কর্মকর্তারা এবার আইনি সংস্কার ও আনুষ্ঠানিক তদন্তের মুখামুখি হতে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছেন।

বিশ্বের ৯৬টি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমসহ বিশ্বব্যাপী সহযোগিতার সমন্বয়কারী মার্কিনভিত্তিক সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অব ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্ট-আইসিআইজে’ ১৩.৪ মিলিয়ন তথ্য ফাঁস করার পর ওয়াশিংটন হতে লন্ডন, ফ্রান্স থেকে ভারত পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী এই প্রতিধ্বনি ছড়িয়ে পড়ে। কর থেকে বাঁচার জন্য বিভিন্ন ট্যাক্স হেভেনে (কর দিতে হয় না কিংবা খুবই নিম্ন হারে কর দেওয়া যায় এমন দেশ) বিনিয়োগ করে আর্থিকভাবে লাভবান হওয়া এই রাঘব বোয়ালরা এখন গণমাধ্যমসহ রাষ্ট্রের তদন্তের মুখে পড়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্র: আইসিআইজি’র প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রী উলবার রোস ক্রেমলিনের তেল কোম্পানির সঙ্গে গোপন ব্যবসা করছেন। এর পরপরই মার্কিন সিনেটের ডেমোক্রেটরা রোসের ব্যবসার তদন্ত করার আহŸান জানান। বøুমবার্গের সঙ্গে এক সাক্ষতকারে রোস কংগ্রেসকে ভূয়া তথ্য দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন এবং বলেন, সম্ভবত তিনি তার কোম্পানির শেয়ার বিক্রি করে দিয়েছেন। ওই কোম্পানিটির রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের জামাতার এনার্জি কোম্পানির সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক ছিল।

যুক্তরাজ্য: ব্রিটেনের রাণী এলিজাবেথ কেম্যান আইল্যান্ড ও বারমুডায় ১০ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করেছেন, প্যারাডাইস পেপারের এই তথ্যের জন্য গণমাধ্যমকে দোষারোপ করেছেন দেশটির রাজনীতিবিদরা।

কানাডা: কানাডার ৩ হাজার কোম্পানি ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী পল মার্টিন, ব্রায়ান মুলরোনে, জন ক্রেটিয়েন এবং বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর নির্বাচনি ক্যাম্পেইনের প্রধান অর্থ যোগানদাতার নাম রয়েছে প্যারাডাইস পেপারে। দেশটির রাজস্ব সংস্থা সিআরএ জানিয়েছে, কর ফাঁকির এই কেলেঙ্কারির তদন্ত করতে তারা কোন ধরনের দ্বিধা বোধ করবে না।

ইউরোপ: ইউরোপিয় কমিশনের অর্থনীতিক বিষয়ক প্রধান পিয়েরে মসকোভিসি টুইট বার্তায় বলেছেন, ‘ইইউর কর ফাঁকি বিরোধী অভিযান সম্পন্ন করার সময় এসেছে, খুব তাড়াতাড়িই ট্যাক্স হ্যাভেনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। ইউরোপিয় পার্লামেন্টের সদস্য এবং পানামা পেপার তদন্তে ইউরোপিয় পার্লামেন্টের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী ইভা জোলি বলেন, যদি এটি ‘বৈধ’ হয় তবে খুব আইন পরিবর্তন করা প্রয়োজন।

স্পেন: স্পেনের অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টোভাল মন্টোরে বলেন, তার দেশের কর সংস্থা প্যারাডাইস পেপারে আসা ব্যক্তিদের নাম তদন্ত করছে।

ভারত: প্রকাশিত তথ্যে ভারতের ৭০০ ব্যক্তি, সংস্থা ও কোম্পানির নাম পাওয়া গিয়েছে। ভারতের আয়কর বিভাগ ও দেশটির নিরাপত্তা পরিদর্শক সংস্থা তদন্তের ঘোষণা দিয়েছে। বলা হয়েছে, যে কোন ধরনের অনাকাঙ্খিত আয়, তহবিল, কর ফাঁকি তদন্তের আওতায় আনা হবে।

অস্ট্রেলিয়া: আইসিআইজি এর তথ্য প্রকাশের পর অস্ট্রেলিয়ান ট্যাক্সেশন অফিস এক বিবৃতিতে জানায়, এটি দেশের কর সংস্থাগুলোর সঙ্গে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে ও অন্যান্য দেশের কর তদন্ত পরামর্শকদের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।

বারমুডা: প্রধানমন্ত্রী ডেভিড বার্ট বারমুডার কর আইনের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বিবিসিকে এক সাক্ষাতকারে বনে, বারমুডাতে আপনি কখনোই অর্থ লুকাতে পারবেন না কারণ যে কোন আন্তর্জাতিক কর কর্তৃপক্ষের অনুরোধে আমরা তথ্য সরবরাহ করে থাকি। তিনি আরো বলেন, বারমুডা গণমাধ্যমের এই তদন্ত খতিয়ে দেখছে।

ক্যামেন আইসল্যান্ড: ক্যামেন আইসল্যান্ডের শিল্প সংস্থার প্রধান নির্বাহি জুডি স্কট ব্রিটিশ ফিনেন্সিয়াল সার্ভিস সেক্টর ও রাণী দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি সমর্থন জানিয়ে বলেন, আমরা কর, মুক্ত বাণিজ্য ও বিশ্বজুড়ে আর্থিক স্বচ্ছতার প্রতি প্রতিশ্রæতিবদ্ধ।

এছাড়া ‘অ্যাপেল বে’ সংস্থা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, আমরা খুব দ্রæত আমাদের আর্থিক কর্মকাÐের বিষয়টি তদন্ত করেছি, আমরা নিশ্চিত হয়ে জানাচ্ছি যে আমরা কোন অসঙ্গতি পাই নি। ‘অক্সফাম’ এবং ‘গেøাবাল উইটনেস’ সংস্থা দুইটি প্যারাডাইস পেপারে ফাঁস হওয়া এই অসঙ্গতির বিষয়ে তাদের উদ্বেগ ব্যক্ত করেছে এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এই বিষয়ে যথাযথ পদক্ষেপ ও তদন্ত করার আহবান জানিয়েছে। সূত্র : আইসিআইজি।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ