প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাছ মুরগী সবজির ট্রাকে ঝাপিয়ে পড়ছে টানা পার্টি

ইসমাঈল হুসাইন ইমু : রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকা ফার্মগেট, রাত বাড়লে কিছুটা ব্যস্ততা কমে। মধ্যরাতে কারওয়ানবাজার ঘিরে কিছুটা ব্যস্ততা বাড়ে এই এলাকায়। তবে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ত সময় পার করে স্থানীয় ১০ থেকে ১৯ বছর বয়সী একদল কিশোর। এরা দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মাছ মুরগী সবজি ভর্তি কাবার্ড ভ্যান ও ট্রাক থেকে এসব পন্য নামিয়ে দ্রুত সটকে পড়ছে। অনেক সময় পণ্যের মালিক গাড়িতে থাকলেও এদের ভয়ে নিরবে সহ্য করছে। উচ্চবাচ্য করলে ধারালো অস্ত্র প্রদর্শন করছে এরা। পুলিশের নজরদারি না থাকায় দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা চলছে।

মঙ্গলবার রাত ৩টা। বগুড়া থেকে সবজি ভর্তি ট্রাক ফার্মগেট থেকে কারওয়ানবাজারের দিকে যাচ্ছে। স্বল্প গতিতে মোড় পার হওয়ার ৭/৮ কিশোর ঝাপিয়ে পড়ে ওই ট্রাকে। মুহুর্তেই নানা ধরনের সবজির বস্তা নমিয়ে কেচে পড়ে তারা। এর কিছুক্ষণ পর মাছভর্তি একটি কাভার্ড ভ্যান আসে একই দিক থেকে। এবার অন্য গ্রুপের সদস্যরা ওই কাভার্ড ভ্যান থেকে মাছ ভর্তি ড্রাম নামিয়ে সটকে পড়ে। আশপাশে কোথাও এসব মাছ সবজি রেখে সকলে মিলে আবারও রাস্তার পাশে চলে আসে। গড়ির গতি কিছুটা কম হলেই উঠে পড়ে ওরা। যাই পাওয়া যায় তাই নিয়ে চলন্ত গাড়ি থেকেই লাফিয়ে পড়ে। তবে ওইরাতে মাছভর্তি ভ্যানটিতে এক পুলিশ কর্মকর্তার মাছ আসছিল। মাছ চুরির খবর পেলে এবার তৎপরতা বাড়ে পুলিশের। তেজগাঁও থানা পুলিশের একটি দল তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে চার কিশোরকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। এসময় এক পুলিশের সোর্সও আটক হয়। তাকে আটকের বিষয়ে জানা যায়, পুলিশ আসার আগে এসব চোরদের কাছ থেকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তিনি টাকা আদায় করছিলেন। পুলিশের হাতে আটক হবার পর টানা পার্টির সদস্যদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তাকে আটক করা হয়। পরদিন দুপুরে অবশ্য ওই সোর্সকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, এ ঘটনা দীর্ঘদিনের। পুলিশের তৎপরতা না থাকায় টানা পার্টির সদস্যরা অনেকটা নির্দিধায় তাদের কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। সূত্র জানায়, ট্রাক কাভার্ড ভ্যান থেকে নামিয়ে ফেলা মালামাল ফার্মগেট সুপার মার্কেটের সামনে প্রকাশ্যেই বিক্রি করা হয়। ক্রেতারা কম মুল্যে কিনতে পেরে এসব পন্য কোত্থেকে এলো তার খোঁজ নেয়না। স্থানীয় ব্যবসায়ীরাও এই টানা পার্টির সদস্যদের কাছ থেকে নিয়মিত কম দামে পণ্য কিনে থাকেন।

এ বিষয়ে তেজগাঁও থানার ওসি মাজাহারুল ইসলাম বলেন, কারওয়ানবাজার নয় পুরো থানা এলাকায় টহল পুলিশের পাশাপাশি চেকপোষ্ট বসিয়ে তল্লাশী করা হয়। তবে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা থাকতে পারে। ট্রাক কাভার্ড ভ্যান থেকে পন্য নামানোর বিষয়ে চালক ও পণ্যের মালিকদের সতর্ক থাকা উচিৎ। তবে পুলিশ এ বিষয়ে তৎপর রয়েছে। মাঝেমধ্যে আটক করা হচ্ছে অপরাধীদের।

তিনি বলেন, কাউকে আটকের পর অনেক সময় দেখা যায় কোন অভিযোগকারি থাকেনা। অনেকেই চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধারে মামলা করেনা। তবে যোকোন অপরাধী আটকের পর মামলা করে আদালতে প্রেরণ করা হয়। তবে দুর্বল মামলার কারনে এসব টানা পার্টির সদস্যরা সহসাই জামিনে বেরিয়ে আবারও পুরনো পেশায় লিপ্ত হচ্ছে বলে ভুক্তভোগীরা মনে করছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ