প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হামলাকারীদের হটিয়ে আফগান টিভি স্টেশন মুক্ত করার ঘোষণা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কয়েক ঘণ্টার গোলাগুলি আর অভিযানের পর অবশেষে শামসাদ টিভি স্টেশনকে হামলাকারী মুক্ত করেছে আফগানিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী। এরইমধ্যে টিভি চ্যানেলটির সম্প্রচারও আবার শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি। হামলায় ঠিক কতজন হতাহত হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। তবে টিভি স্টেশনের ভেতরে হামলা চলার সময় সেখান থেকে পালাতে পারা কর্মীরা জানিয়েছিলেন তাদের কয়েকজন সহকর্মী নিহত হয়েছেন। এখন পর্যন্ত কেউ হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে তালেবানের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদ এক টুইটার পোস্টে দাবি করেছেন, হামলায় তার সংগঠন জড়িত নয়।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পর পরই শামসাদ টিভির এক ঘোষণায় বলা হয়, ‘হামলার সমাপ্তি হয়েছে। বিশেষ বাহিনীর কমান্ডারের তথ্য অনুযাযী ভবনের ভেতরে থাকা সব কর্মীকে উদ্ধার করা হয়েছে।’

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি স্থানীয় টেলিভিশন স্টেশনে গ্রেনেড ও বন্দুক দিয়ে আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকার খবরে বলা হয়েছে, গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ওই টেলিভিশন ভবনে প্রবেশ করে হামলাকারীরা।

হামলা চলার সময় সেখান থেকে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছিলেন এমন এক সংবাদকর্মী বার্তা সংস্থা এএফপিকে তখন বলেছিলেন, ‘অনেকেই ভেতরে আটকা পড়ে আছেন।’ শামসাদ টিভির ফয়সাল জালান্দ নামের ওই রিপোর্টার বলেন, ‘আমি সিসি ক্যামেরাতে তিনজন হামলাকারীকে টিভি স্টেশনে প্রবেশ করতে দেখি। তারা প্রথমে নিরাপত্তা রক্ষীকে গুলি করে, তারপর প্রবেশ করে। এরপর তারা গ্রেনেড নিক্ষেপ করে এবং গুলি ছুঁড়তে থাকে। তিনি বলেন, ‘নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা হামলাকারীদের দমন করার চেষ্টা করছে। আমার কয়েকজন সহকর্মী নিহত হয়েছেন, আহতও হয়েছেন কয়েকজন। আমি পালিয়ে আসতে সক্ষম হই।’

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ওই চ্যানেলের কার্যালয়ে প্রথমে গ্রেনেড নিক্ষেপ করা হয়। এরপর তারা গুলি চালাতে শুরু করে।

হামলার কিছুক্ষণ পরেই টেলিভিশন চ্যানেলটির সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয়। তবে হামলার সমাপ্তি ঘোষণার পর তা আবার খুলে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৭ নভেম্বর) আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের একটি স্থানীয় টেলিভিশন স্টেশনে গ্রেনেড ও বন্দুক দিয়ে আত্মঘাতী হামলা চালানো হয়। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ভয়েস অব আমেরিকার খবরে বলা হয়েছে, গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ওই টেলিভিশন ভবনে প্রবেশ করে হামলাকারীরা। সূত্র : বাংলা ট্রিবিউন 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ