প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিরাজগঞ্জের প্রায় তিনশ কোটি টাকার বাঁধে চারটি পয়েন্টে ধস

হ্যাপী আক্তার: সিরাজগঞ্জের প্রায় তিনশ কোটি টাকার বাঁধে চারটি পয়েন্টে ধস নেমে প্রায় ৫শ মিটার নদীতে ভেসে গেছে। স্থানীয়দের অভিযোগ পানি উন্নয়ন বোর্ডে তদারকি ও সংস্কার না থাকায় এই বেহাল অবস্থা বাঁধের। এরই মধ্যে গ্রামের কয়েকটি ফসলি জমি, ঘর-বাড়ি, হাট-বাজর ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বহু স্থাপনা হুমকির মুখে পরেছে। সূত্র: একাত্তর টিভি।

শাহাদাতপুরের সফিউল রহমানের ১২৮ বিঘা জমির ফসলি জমি আর ১১ বিঘা পৈত্রিক বাড়ি এখন শুধুই পানি। সব হারিয়ে এখন গুতিবাড়িতে সেটাও এখন পানি মুখি। এমন অবস্থা এই এলাকার শত শত পরিবারের।

এলাকার লোকজনের অভিযোগ বাঁধ তৈরির বিভিন্ন জায়গায় ক্রটি পাওয়া গেলেও সংস্কার করা হয়নি গত ৬ বছরেও। গত এক সপ্তাহে ভাজপাড়া রোহিদ্ধাকান্দি জবতলা পয়েন্টে পর পর চারটি জায়গায় ধস দেখা দেয়। হারিয়ে যায় চারটি পয়েন্টের ৫শ মিটার এলাকা। যার কারণে হুমকির মুখে পরেছে বহু স্থাপনা। আর এ জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডকে দোষারোপ করছে একাবাসী। তারা বলছেন বার বার পানি উন্নয়ন বোর্ডকে জানানো হলেও কোন ধরণের ব্যবস্থা নেয়নি পানি উন্নয়ন বোর্ড।

শাহাজাদপু, ইউএনও’এর শেহেলী লায়লা বলেন, যে ভায়াবহ অবস্থা দেখা গেল। উপরোক্ত কর্মকর্তাকে নিয়ে পরিদর্শন করে বাঁধ সংস্কার করা হবে।

পাবনা, কৈটোলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আহসান হাবীব বলেন, বাজেটের সীমাবদ্ধতার কারণে পানি উন্নয়ন বোর্ড সঠিক সময়ে বাঁধের সংস্কার করা সম্ভব হয় না।

শাহাদাতপুরের কৈটোরি থেকে পাবনার বেড়া উপজেলা বিনোদিয়া পর্যন্ত ২০০৯ ও ২০১০ অর্থ বছরে আড়াইশ কোটি টাকার কৈটোলা পানি উন্নয়ন বোর্ড ১০ কিলোমিটার নদীটির সংরক্ষণ বাঁধ তৈরি করে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ