প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চার লাখ রোহিঙ্গার নিবন্ধন সম্পন্ন

ফরহাদ আমিন, টেকনাফ (কক্সবাজার) : মিয়ানমার সেনাবাহিনী অত্যাচার র্নিযাতনে পালিয়ে আসা ৬ লাখ ১৫ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

তবে এখনও রোহিঙ্গাদের আসা অব্যাহত রয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখাসহ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া সহজ করতে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করছে প্রশাসন। এরইমধ্যে চার লাখ রোহিঙ্গার বায়োমেট্রিক নিবন্ধন সম্পন্ন হয়েছে।

সাতটি কেন্দ্রে প্রতিদিন ১২ থেকে ১৩ হাজারের মতো রোহিঙ্গার নিবন্ধন করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের তত্ত্বাবধানে বিজিবি ও সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের নিবন্ধনের এই কাজ করছে।

প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশনের কাজ শেষে দেওয়া হচ্ছে ছবিযুক্ত কার্ড। ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের উপ-পরিচালক আবু নোমান মো. জাকির হোসেন জানান, বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে এ পর্যন্ত চার লাখ রোহিঙ্গার রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে। শুরু দিকে রেজিস্ট্রেশন কেন্দ্র ও যন্ত্রপাতির সীমাবদ্ধতা থাকলেও এখন এসব কাটিয়ে ওঠা গেছে।

এর আগে রোহিঙ্গারা ত্রাণের জন্য ছোটাছুটি করলেও বায়োমেট্রিক নিবন্ধনে অনীহা ছিল। রেজিস্ট্রেশনে অনেক রোহিঙ্গা নিরুৎসাহিত ও করেছিল। তবে বর্তমানে ত্রাণসহ বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা পেতে নিবন্ধন কার্ডের গুরুত্ব বোঝানোর পর হুমড়ি খেয়ে পড়েছে রোহিঙ্গারা। ক্যাম্পে  ক্যাম্পে মাঝিদের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের উদ্বুব্ধ করার পর এই গতি এসেছে।ও নতুনদের পাশাপাশি পুরনো রোহিঙ্গারাও এর আওতায় রয়েছে। ছবিযুক্ত এই কার্ডের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের সঠিক পরিসংখ্যান, সাময়িক আশ্রয় ও মানবিক সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠাতে এই তথ্যভার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ