প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেটে আবারও চুরির অভিযোগে
কিশোরকে গাছে বেঁধে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

আশরাফ চৌধুরী রাজু, সিলেট : দেশ-বিদেশে আলোচিত শিশু সামিউল আলম রাজনকে নির্যাতনের মাধ্যমে হত্যার ঘটনা এখনো মানুষের মন থেকে মুছে যায়নি। এ নির্যাতনের মতো আরেকটি বর্বোরিচত ঘটনা ঘটেছে। সিলেটে। আরেক কিশোরকে চুরির অপবাদে পাশবিক নির্যাতন করা হয়েছে। নির্যাতনের পর মাদক মামলায় পুলিশের হাদে তুলে দেওয়া হয়েছে সেই কিশোরকে।
গত ২৯ অক্টোবর সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার মানাউড়া পূর্বপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের একাধিক ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। মাদক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে কিশোরটি বর্তমানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছে। এঘটনায় সোমবার প্রধান অভিযুক্ত ওই এলাকার ইসবর আলীকে (৬৫) আটক করেছে পুলিশ। এছাড়া অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু হাসনাত খানকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কদন্ত কমিটি গঠন করেছেন সিলেটের পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান। এই কমিটিকে ৩ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) মুহম্মদ শামসুল আলম সরকার।

নির্যাতিত কিশোরের পরিবারের অভিযোগ, নির্যাতন ঢাকতে ছেলেটির বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা করেছেন পুলিশের এক সদস্য।
১ মিনিট ৫৭ সেকেন্ডের দুটি ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, মাটিতে পড়ে আছে এক কিশোর। দুই হাত ও পা একত্র করে গাছের সঙ্গে বাঁধা। চারপাশে কৌতুহলী মানুষের জট। একজন বাঁশের কঞ্চি দিয়ে ছেলেটিকে পেটাচ্ছেন। যন্ত্রণায় চিৎকার করছে ছেলেটি। পিটুনির পর কান ধরে উঠবস করিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

জানা গেছে, নির্যাতনের শিকার এই কিশোরের বাবা মারা গেছেন ২০০৯ সালে। মা আছেন। ছয় ভাই ও এক বোনের পরিবারে সে তৃতীয়। বড় ভাই সিলেট মহানগরের টিলাগড়ে রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। সে পেশায় একজন নির্মাণ শ্রমিক।
কিশোরের মার দাবি, তার ছেলে চোর নয়। ঘটনার দিন সকালে তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পেটানো হয়। নির্যাতনকারীরা তার গ্রামেরই লোক। গত বছরের ১১ মে গ্রামে তার গরু চুরির ঘটনায় এক পক্ষের বিরুদ্ধে থানায় তিনি (মা) লিখিত অভিযোগ করেছিলেন। ওই অভিযুক্ত ব্যক্তিদের পক্ষ নিয়ে তার ছেলেকে নির্যাতন করা হয়েছে। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ