প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

এলইডি লাইটের আলোর কারণে মনিপুরের লোকতাক হ্রদে কমছে পাখির সংখ্যা

হিরন্ময় ভট্টচার্য, গুয়াহাটি : চোখ ধাঁধিয়ে দিচ্ছে এলইডি লাইট৷ সেই আলোর ধাঁধায় পথ হারিয়েছে ভিনদেশি পাখিরা ৷ পরিস্থিতি এমন যে শীতের মৌসুমে বিখ্যাত লোকতাক হ্রদে কমছে পাখির সংখ্যা৷ ভারতের মনিপুর রাজ্যের এই বিখ্যাত মিষ্টি পানির হ্রদটি উত্তর পূর্ব ভারতের সব থেকে বড় প্রাকৃতিক জলাধার ৷

পরিবেশবিদরা জানিয়েছেন, মূলত পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে পরিযায়ী পাখিরা মনিপুরে উড়ে আসে৷ বিশাল লোকতাক হ্রদের জলে ভাসমান ঘাস জমি তাদের খুব পছন্দ৷ চীনের তৈরি এলইডি লাইট তাদের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে ৷

বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ ও গ্রিন অ্যাক্টিভিস্টরা উদ্বিগ্ন৷ তাঁরা জানিয়েছেন, ২০১৬ সালের পর থেকে ব্যাপক হারে কমেছে পরিযায়ী পাখির সংখ্যা৷ তিব্বত ও চীনের ইউনান প্রদেশ থেকে এখনো পর্যন্ত এসেছে মাত্র ৫০০০ পাখি ৷

পরিবেশবিদরা খুঁজে দেখেছেন, লোকতাক হ্রদ ও সংলগ্ন এলাকায় মাছের চাষ হয় ৷ মৎস্যচাষীরা রাতে চীনা এলইডি ব্যবহার করছেন ৷ তার উজ্জ্বল সাদা আলোয় পাখিদের চোখ ধাঁধিয়ে যাচ্ছে ৷ বিরক্ত হয়ে লোকতাক হ্রদ ত্যাগ করে অন্যত্র উড়ে যাচ্ছে তারা ৷

ইম্ফল থেকে মাত্র ৫০ কিলোমিটার দূরে বিশ্ববিখ্যাত লোকতাক হ্রদ অবস্থিত৷ ২৩৬.২১ বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এর বিস্তৃতি৷ সুপেয় জলাভূমি বিভিন্ন প্রাণীর আবাসস্থল৷ এই হ্রদ মাছ চাষের জন্য বিশেষ ক্ষেত্র ৷

মণিপুরের অন্যতম মৎস্য চাষ কেন্দ্র লোকতাক হ্রদ৷ বহু মানুষের রোজগার এর সঙ্গে জড়িয়ে৷ আবার বিরল প্রজাতির পরিযায়ী পাখির জীবনের জন্য লোকতাক হ্রদ জরুরি৷ ফলে দো টানায় বিশেষজ্ঞরা ৷ কোনওভাবেই মৎস্য চাষ বন্ধ করা সম্ভব নয়৷ এমন অবস্থায় চীনা এলইডি ব্যবহার বন্ধ করতে উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে ৷

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ