প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সরকারের উচিত অপপ্রচারের কড়া জবাব দেওয়া

ডা. ইমরান এইচ সরকার : বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অভ্যন্তরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে নিয়ে কূটনৈতিক শিষ্টাচার বিবর্জিত এবং ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য দেওয়ার জন্য যত দ্রুত সম্ভব পাকিস্তান হাইকমিশনারকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠানো উচিত। কেননা, এটা বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ মীমাংশিত একটা বিষয়। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জাতির জনক এবং স্বাধীনতার ঘোষক। এ বিষয়টি আদালত কর্তৃকও মীমাংশিত। সুতরাং পাকিস্তান হাইকমিশনের পক্ষ থেকে কোনোভাবেই এ ধরনের কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত একটা বক্তব্য দিতে পারেন না। তাদের এই বক্তব্য একাধারে কূটনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত এবং জেনেভা কনভেনশন ও আইনের লঙ্ঘন। এর আগেও পাকিস্তান বাংলদেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে, বাংলাদেশ রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে অযাচিতভাবে হস্তক্ষেপ করেছে, আমরা এগুলোর প্রতিবাদ করেছি। কিন্তু সরকার নীরব থাকার কারণে, তাদের আসকারা দেওয়ার কারণেই পাকিস্তান আজ এতো বড় সাহস দেখাতে পেরেছে। তারা আজ বাংলাদেশের জাতির জনককে নিয়ে নগ্ন মিথ্যাচারে নেমে পড়েছে। পাকিস্তান বলছে ‘বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিপক্ষে, পাকিস্তান বেতার এবং টেলিভিশনে ভাষণ দিতে চেয়েছিল’। তাই যদি হয়! পাকিস্তানও বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি। তাহলে তো তারা বঙ্গবন্ধুকে গ্রহণ করে তাকে ভাষণ দিতে দিতো কিন্তু সেটা না করে কেন উল্টো কাজ করেছিল? কেন বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করেছিল, কেন যুদ্ধ করেছিল? কিসের জন্য বাংলাদেশের ৩০ লাখ মানুষকে হত্যা করেছিল? তাদের বক্তব্য নির্জলা মিথ্যাচার ছাড়া আর কিছু নয়। পরিকল্পিতভাবে বঙ্গবন্ধুকে এবং আমাদের মুক্তিযুদ্ধকে বিতর্কিত করার এটা একটা অপচেষ্টা। পাকিস্তান বুঝে গেছে, তাদের মিত্ররা যারা পাকিস্তান চেয়েছিল, একাত্তরের গণহত্যায় পাকিস্তানকে যারা সাহায্য করেছিল; হত্যা, ধর্ষণ, লুণ্ঠনের সাথে যারা সরাসরি যুক্ত ছিল, সেই যুদ্ধাপরাধীদের ইতোমধ্যে বিচার হচ্ছে। সুতরাং সেই যুদ্ধাপরাধীদের বাংলার মাটিতে আর ঠাঁই নেই, সেটা তারা বুঝে গেছে। তাই তারা নতুন করে ষড়যন্ত্র করছে, তাদের মিত্রদের বাংলাদেশে আবার কিভাবে প্রতিষ্ঠিত করা যায়। এ কারণে তারা বঙ্গবন্ধুকে আক্রমণ করেছে। কেননা, বঙ্গবন্ধুকে আক্রমণ করা মানে মুক্তিযুদ্ধকে আক্রমণ করা। বাংলাদেশকে আক্রমণ করা। পাকিস্তানের এই ধৃষ্টতা বাংলাদেশ বসে বসে হজম করবে, তা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। সরকারের উচিত কূটনৈতিকভাবে পাকিস্তানের এই অপপ্রচারের কড়া জবাব দেওয়া।
পরিচিতি : মুখপাত্র, গণজাগরণ মঞ্চ
মতামত গ্রহণ : লিয়ন মীর
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ ও খন্দকার আলমগীর হোসাইন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ