প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারকে চাপ দিন : অস্ট্রেলিয়াকে বাণিজ্যমন্ত্রী

সঞ্চিতা আক্তার : রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের উপর চাপ প্রয়োগে অস্ট্রেলিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত জার্মান-অষ্ট্রেলিয়ান এশিয়া প্যাসিফিক রিজিওনাল কনফারেন্সে যোগদানরত তোফায়েল আহমেদ অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এ আহ্বান জানান।

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তোফায়েল বলেন, রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে অস্ট্রেলিয়া সরকার মিয়ানমারের উপর চাপ বৃদ্ধিসহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে বাংলাদেশ আশা করে।

রোববার অস্ট্রেলিয়ার পার্থ শহরে ক্রাউন টুওয়ার্স হোটেলে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশোপ-এর সঙ্গে একান্ত বৈঠকের সময় তোফায়েল এ কথা বলেন। বৈঠকে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এ সংক্রান্ত একটি পত্রও হস্তান্তর করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। রোববার বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

তোফায়েল বলেন, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে মিয়ানমার সরকার অমানবিক আচরণ করছে। তাদের ঘরবাড়ি পোড়ানো, গণহত্যা, ধর্ষণসহ নানাভাবে নির্যাতন করা হচ্ছে। ফলে রোহিঙ্গারা জীবন বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে। বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গার সংখ্যা এখন প্রায় ১০ লাখ। এ বিপুল সংখ্যাক রোহিঙ্গা বাংলাদেশের জন্য বড় সমস্যা।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের একান্তই মানবিক কারণে সাময়িক আশ্রয় দিয়েছেন। তাদের খাদ্য, বাসস্থান, চিকিৎসাসহ যথাসম্ভব সব ধরনের মানবিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে। নানা কৌশলে মিয়ানমার সরকার বিষয়টিকে বিলম্বিত করছে। তাই রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরাতে আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানো প্রয়োজন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রোহিঙ্গা সংকটের স্থায়ী সমাধানে যে পাঁচদফা প্রস্তাব দিয়েছেন তা যথাযথভাবে বাস্তবায়নে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতা প্রয়োজন। একই সঙ্গে সমস্যা সমাধানে বিশ্বজনমত সৃষ্ঠিতে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতা কামনা করা হয়।

তোফায়েল আহমেদ অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য বৃদ্ধির উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে। অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশকে ডিউটি ও কোটা ফ্রি বাণিজ্য সুবিধা দিচ্ছে, সেজন্য অস্ট্রেলিয়ার প্রতি বাংলাদেশ কৃতজ্ঞ। বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়ায় এয়ার কার্গো চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাংলাদেশের বিমানবন্দরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এখন বিমান বন্দরের নিরাপত্তা অন্য যে কোন সময়ের চেয়ে অনেক ভালো। তাই অস্ট্রেলিয়া কার্গো উড়োজাহাজ চলাচল পুনরায় চালু করতে পারে।

সূত্র : জাগো নিউজ

 

সর্বাধিক পঠিত