প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষকের বেত্রাঘাতে জেডিসি পরীক্ষার্থী আহত

শরিফুল আলম চৌধুরী, মুরাদনগর (কুমিল্লা): কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল দক্ষিণ পাড়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির জেডিসি পরীক্ষাথী ইব্রাহীমকে বেধড়ক বেত্রাঘাত করা হয়েছে।

নকল নিয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রধান গেইট দিয়ে পরীক্ষা দেয়ার জন্য প্রবেশ করেছে এমন অযুহাতে শুশুন্ডা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার সহকারী মৌলভী নুর-ই আলম তাকে বেত্রাঘাত করেন।

রোববার সকাল ৯টায় উপজেলার শুশুন্ডা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসার জেডিসি পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রধান ফটকে বেত্রাঘাতে গুরুতর আহত ইব্রাহীমকে (১৪) প্রথমে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে দুপুরে মুরাদনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে।

পরীক্ষা কেন্দ্রে দায়িত্বরত মুরাদনগর থানার পুলিশ কন্সস্টেবল আল আমীন জানান, পরীক্ষা কেন্দ্রের প্রধান ফটকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষার্থে আমিও দায়িত্বে ছিলাম, তবে ওই শিক্ষক কেন্দ্রে প্রবেশ ও পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগেই কেনো কী কারনে ওই ছাত্রকে এতো নির্দয়ভাবে বেধড়ক বেত্রাঘাত করে তাকে গুরতর আহত করলো তা বুঝে উঠতে পারছিনা।

মুরাদনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সফিউল আলম তালুকদার বলেন, বিষয়টি ইউএনও স্যারকে অবহিত করে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রাসেদুল কাদের বলেন, ওই ঘটনা আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানার পরই সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিবকে ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

শুশুন্ডা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা পরীক্ষা কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ও ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোবারক হোসেন দু:খ প্রকাশ করে বলেন, ঘটনাটি অনাকাঙ্খিত তারপরও ইউএনও ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার নির্দেশনা মোতাবেক আমরা ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এ বিষয়ে কাজিয়াতল ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি শরিফুল আলম চৌধুরী বলেন, পরীক্ষার্থী পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ না করতেই প্রধান ফটকে আটকে রেখে নকলের অযুহাতে শিক্ষার্থীকে এভাবে বেধরক বেত্রাঘাত কোনভাবে উচিত হয়নি। আমি এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে ইউএন্ও ও মাধ্যমকি শিক্ষা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলেছি।