প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

স্বামীর মৃত্যুর পর স্ত্রী কতদিন ইদ্দত পালন করবে?

সাইদুর রহমান : অনেক সময় দেখা যায়, স্বামীর মৃত্যুর স্ত্রীরা যথাযথভাবে ইদ্দত পালন করে না। ইদ্দতের নিয়ম পালন করে না। আবার অনেক নারী অজ্ঞতাবশত অন্যত্রে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। এতে শরিয়তের বিধান চরমভাবে লঙ্ঘিত হয়। স্বামীর মৃত্যুর পর  প্রত্যেক স্ত্রীর উচিত অন্তঃসত্তা হলে সন্তান ভ‚মিষ্ঠ হওয়া পর্যন্ত ইদ্দতের সময়কাল পালন করা। আর অন্ত:সত্তা না হলে স্বাভাবিকভাবে ৪ মাস ১০ দিন ইদ্দত পালন করা। এসময় স্ত্রীদের সব ধরনের সাজসজ্জা থেকে বিরত থাকা বাধ্যতামূলক।

ইদ্দতের সময়কালে বিষয়ে আল-কুরআনে আল্লাহ তাআলা বলেন, আর তোমাদের মধ্যে যারা মৃত্যুবরণ করবে এবং নিজেদের স্ত্রীদেরকে ছেড়ে যাবে, তখন সে স্ত্রীদের কর্তব্য হলো নিজেকে চার মাস দশ দিন পর্যন্ত অপেক্ষা করিয়ে রাখা। তারপর যখন ইদ্দত পূর্ণ করে নেবে, তখন নিজের ব্যাপারে নীতি সঙ্গত ব্যবস্থা নিলে কোন পাপ নেই। আর তোমাদের যাবতীয় কাজের ব্যাপারেই আল্লাহর অবগতি রয়েছে। (সূরা বাকারা ২৩৪)

অন্য আয়াতে এসেছে, গর্ভবর্তী নারীদের ইদ্দতকাল সন্তানপ্রসব পর্যন্ত। ( সূরা তলাক, ৪)

হাদীসে স্পষ্টভাবে স্ত্রীদের ইদ্দতের সময়কাল উল্লেখ করা হয়েছে। যেমন : উম্মে হাবীবা রা. থেকে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি যে, আল্লাহ এবং পরকালে বিশ্বাসী কোনো নারীর জন্য তার স্বামী ব্যতীত অন্য কারো মৃত্যুতে তিনদিনের বেশি সময় হিদাদ (শোক করা ও সাজসজ্জা থেকে বিরত থাকা) বৈধ নয়। আর স্বামীর মৃত্যুতে ৪ মাস ১০ দিন হিদাদ পালন করবে। (সহীহ বুখারী ২/৮০৩,হাদীস : ৫১২৮)

অন্য হাদীসে এসেছে, উম্মে সালামা রা. হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, যে স্ত্রী লোকের স্বামী মৃত্যুবরণ করে সে যেন ইদ্দতকালীন সময়ে রঙিন এবং কারুকার্যমণ্ডিত কাপড় ও অলংকার পরিধান না করে। আর সে যেন খিযাব ও সুরমা ব্যবহার না করে। (সুনানে আবু দাউদ ১/৩১৫,হাদীস : ২২৯৮)

তাছাড়া ইদ্দতকালীন সময় অনেক জিনিষ থেকে বিরত থাকতে হবে। যেমন : সাজগোজ, সুগন্ধি ব্যবহার রঙিন এবং কারুকার্যমণ্ডিত কাপড় পরিধান, অলংকার পরিধান, মেহেদি ও আলতা ব্যবহার, খিযাব (কলপ)ও সুরমা ব্যবহার, নেইল পালিশ, ইত্যাদি সাজসজ্জার যাবতীয় উপকরণ ইত্যাদি।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ