প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জেমস কমির পর এবার রিপাবলিকানদের তোপের মুখে রবার্ট মুলার

লিহান লিমা : মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ ও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচারণা শিবিরের সঙ্গে রুশ যোগাযোগ ইস্যুতে বিশেষ তদন্ত কর্মকতা রবার্ট মুলারের বিরুদ্ধে বিল উত্থাপন করেছে রিপাবলিকান দল। শুক্রবার কংগ্রেসে আনা এক রেজ্যুলেশনে ফ্লোরিডার সিনেটর ম্যাট গ্যাটেজ, আরিজোনা অঙ্গরাজ্যের অ্যান্ডি বিগস ও টেক্সাসের লুই গোমের্ট এই প্রস্তাব দেন।

গ্যাটেজ বলেন, রুশ সংযোগ ইস্যুতে বিভিন্ন দুর্নীতির প্রমাণ পেলেও মুলারের এই দায়িত্ব থেকে নিজকে প্রত্যাহার করে নেয়া উচিত। কারণ এর আগে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের এফবিআই প্রধান থাকাকালে তিনি কয়েকটি ইস্যুতে আপস করেছিলেন। তাকে অতি সত্বর এই তদন্ত থেকে সরিয়ে নিতে হবে।

যদিও অনেক রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা মুলারও তার তদন্ত কার্যক্রমের ওর পূর্ণ আস্থা ব্যক্ত করেন। বিজনেস ইনসাইডারের খবরে বলা হয়, এর আগে রুশ তদন্ত ইস্যুতে এফবিআই প্রধান জেমস কমিকে বরখাস্ত করে নিজের গায়ে কালিমা লেপন করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মুলার তদন্ত শুরু করার পর থেকেই মার্কিন গণমাধ্যমগুলো ট্রাম্প যে কোন মুহুর্তে মুলারকে সরিয়ে দিতে পারেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে প্রতিবেদন করেছে। তাই ট্রাম্পকে মুক্তি দিতেই সিনেটে এমন বিল উত্থাপন করেছেন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা।

এই তিন রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা বলেন, মুলারের এই তদন্তে স্বার্থ জড়িয়ে আছে কারণ তিনি প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের দায়িত্ব পালন করেছেন। ওবামা প্রশাসন রুশ কোম্পানিকে কানাডার একটি কোম্পানি থেকে ইউরেনিয়ম ক্রয়ের অনুমতি দিয়েছিল। ওই কানাডার ফার্মের ২০ ভাগ মার্কিন অংশীদারিত্ব আছে। মুলার তখন এফবিআইএর প্রধান ছিলেন। মার্কিন জনগণ আমেরিকান ইউরেনিয়াম কোম্পানির কাছ থেকে রুশ কোম্পানির লেনদেন সম্পর্কে জানতে চায়। তিনি দাবি করেন, এফবিআই কংগ্রেসের কাছে এই তথ্যগুলো গোপন করেছে। এছাড়া গ্যাটেজ জেমস কমি ও মুলারের বিরুদ্ধে হিলারী ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ই-মেইল ব্যবহার তদন্তে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ আনেন। যদিও ডেমোক্রেট আইনপ্রণেতারা মুলারের ওপর রিপাবলিকানদের আনা এই দলীয় অভিযোগ প্রত্যাখান করেন।

এদিকে মস্কোও মার্কিন নির্বাচনে তাদের কোন প্রভাবে কথা প্রত্যাখান করে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও টুইট বার্তায় এই তদন্তকে ‘ডাইনি খোঁজা’ বলে মন্তব্য করেন। এর আগে সোমবার হোয়াইট হাউসের চীফ অব স্টাঢ জন কেলি বলেন, বিশেষ তদন্ত কর্মকর্তাকে ডেমোক্রেটদের ইউরেনিয়াম চুক্তি নিয়ে তদন্ত করতে নিয়োগ দেয়া উচিত।

উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে মুলারের বড়শির টোপে পড়ে ট্রাম্পের সাবেক বৈদেশিক বিষয়ক জর্জ পাপাদোপলিউস এফবিআইয়ের কাছে মিথ্যে বিবৃতি দেয়ার জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। অন্যদিকে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবিরের প্রধান পল ম্যানাফোর্ট ও ব্যবসায়ী বন্ধু রিক গেটসের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। সিএনএনএর খবরে বলা হয়, রবার্ট মুলারের তদন্ত প্রতিবেদনের ফল একে একে প্রকাশ পাচ্ছে। তাই নিজদের বাঁচানোর জন্য একটি ছুতো খুঁজে বের করতে তোড়জোড় শুরু করেছে রিপাবলিকানরা। ওয়াশিংটন পোস্ট, ডেইলি মেইল

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত