প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভবিষ্যতেও আমি এমন জীবনই কাটাতে চাই-রোনালদো

স্পোর্টস ডেস্ক: তার পায়ের জাদুতে মোহিত সারা বিশ্ব। ১৭ বছর কাটিয়ে দিলেন ফুটবল জগতে। এখনো খেলেই যাচ্ছেন তার নিজস্ব ভঙ্গিমাতেই। তিনি আর কেউ নন রেখেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। হয়তো রাখবেন আরও কয়েক বছর। কিন্তু কত দিন? বয়সের কাছে হার মেনে একদিন তাকে বিদায় নিতেই হবে। চুকিয়ে ফেলতে হবে আলোকোজ্জ্বল ক্যারিয়ারের পাট। তার পর? অবসর নেওয়ার পর ভবিষ্যত জীবনে কি করবেন রোনালদো নিজেও তা জানেন না। তবে রিয়ালের মাদ্রিদের পর্তুগিজ সুপার স্টার দুটি বিষয় নিশ্চিত করে দিয়েছেন। জীবনে কখনোই কোচিং করানোর ইচ্ছা তার নেই। কোচ হওয়ার সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিলে ৩২ বছর বয়সী রোনালদো বলেছেন, বর্তমানে যেভাবে জীবন কাটাচ্ছেন, ভবিষ্যত জীবনও কাটাতে চান সেভাবেই!
একজন বড় ফুটবলারের জীবন যেমন হওয়ার কথা, রোনালদোর জীবন তার চেয়েও অনেক বেশী রঙিন! ফ্যাশনের প্রতি প্রচ- ঝোক রিয়াল তারকার। ভীষণ ভালোবাসেন বিলাসী জীবন-যাপন করতে। দামী দামী গাড়ি, আলিশান বাড়ি, বান্ধবীদের নিয়ে দুনিয়ার এ প্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে ঘুরে বেড়ানো-মাঠের চরম ব্যস্ততার মধ্যেও এসব কিছুই করে বেড়াচ্ছেন রোনালদো। যতদিন বাচবেন, সুখের এই জীবনই রোনালদো কামনা করবেন সেটাই স্বাভাবিক।                                                                                                                                                                                     কিন্তু রোনালদো সত্যিই কি তা পারবেন? পারবেন কিনা বলবে সময়। তবে অজানা ভবিষ্যত নিয়ে কথা বলতে গিয়ে এমন স্বপ্নের কথাই জানিয়েছেন ৫ বারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার।
বিশ্বখ্যাত ক্রীড়া সামগ্রি প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান নাইকির সঙ্গে অনেক আগে থেকেই গাটছড়া রোনালদোর। নাইকির অন্যতম পণ্যদূত তিনি। সেই নাইকিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ৩২ বছর বয়সী অজানা ভবিষ্যত সম্পর্কে বলেছেন, ‘ভবিষ্যতে কি করব, এখনোই সেটা বলাটা কঠিন। তবে একটা বিষয় পরিস্কার করে বলতে পারি, বর্তমানের মতোই জীবন কাটাতে পছন্দ করব।’
বিশ্বের অনেক নামীদামী খেলোয়াড়ই খেলোয়াড়ী পাট চুকিয়ে পরবর্তীতে নাম লিখিয়েছেন কোচিং পেশায়। ফুটবলের মানুষ হিসেবে পেশাটা বেশ যুতসইও। কিন্তু কোচিং কিছুতেই টানে না ভ্রমণবিলাসী রোনালদোকে। জানিয়ে দিলেন কোচিং করানোর কোনো রকম ইচ্ছাই তার নেই, ‘আমি জানি, সারা জীবনই তরুণ থাকব না। কিন্তু বর্তমানে দাঁড়িয়ে আমি কখনোই নিজেকে কোচ হিসেবে দেখি না।’
রিয়াল তারকা উপলক্ষ্য পেলেই বলেন, ঈশ্বর প্রদত্ত প্রতিভা, কঠোর পরিশ্রম আর ফুটবলের আত্মনিবেদনই তাকে বিশ্বসেরা বানিয়েছে। তিনি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো হয়ে উঠার রহস্য এটাই। ক্যারিয়ারে অনেকবার বলা সেই কথাটাই রোনালদো আবার বললেন একটু ঘুরিয়ে। আপনার সাফল্যের গোপন রহস্য কি, এমন প্রশ্নের জবাবে রোনালদোর উত্তর, ‘আমাকে সবচেয়ে বেশী অনুপ্রাণিত করেছে যে জিনিসটি, তা হলো আমি সব সময়ই ফুটবল খেলি এবং খেলতে চাই। খেলতে আমার ভালো লাগে। আমি খেলাটা চালিয়ে যেতে চাই।’
প্রতিভা সম্পর্কে তার কথা, ‘প্রতিভার কথা বলছেন, যদি আপনার প্রতিভা না থাকে, তাহলে এই ব্যাপারটা ভুলে যান। যদি প্রতিভা থাকে, তাহলে আপনাকে আমার পরামর্শ, অবশ্যই কঠোর পরিশ্রম করুন এবং খেলাটার মধ্যে নিজেকে ডুবিয়ে রাখুন। অবশ্যই আপনি ভালো করবেন। তবে হ্যাঁ, আমি আপনাকে বলছি, আমি যথেষ্ট প্রতিভাবান।’ ইয়াহু স্পোর্টস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ