প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কমলগঞ্জে মণিপুরী মহা-রাসোৎসব আজ

সোহেল রানা মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : আজ শনিবার (০৪ নভেম্বর) মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে অনুষ্ঠিত হচ্ছে মণিপুরী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব মহা-রাসলীলা। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও কমলগঞ্জে মণিপুরী বিষ্ণুপ্রিয়া ও মৈ-তৈ সম্প্রদায়ের আয়োজনে উপজেলার মাধবপুর জোড়ামণ্ডপ ও আদমপুরের সানাঠাকুর মণ্ডপে এ রাসোৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

এবার মাধরপুর জোড়া মণ্ডপে মণিপুরী বিষ্ণুপ্রিয়া সম্প্রদায়ের আয়োজনে ১৭৫তম এবং আদমপুরের তেতইগাঁও সানাঠাকুর মণ্ডপে মণিপুরী মৈ-তৈ সম্প্রদায়ের রাস উৎসব উদযাপন কমিটির আয়োজনে ৩২তম রাসোৎসব অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কমলগঞ্জের এ দু’টি রাস মণ্ডপের মধ্যে প্রথমবারের মতো এবার মাধরপুর জোড়ামণ্ডপে তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মাধরপুর জোড়ামন্ডপে রাসোৎসব আয়োজনকারী সংগঠন ‘মণিপুরী মহারাসলীলা সেবা সংঘ’ এর উদ্যোগে আয়োজিত তিন দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল আনন্দ র‌্যালি,হোলিউৎসব,বেনিরাস,কৃর্তি মণিপুরী সন্তান সম্মাননা,গোষ্টলীলা (রাখালনৃত্য),মহারাসলীলা স্মারক উদ্বোধন,আলোচনা সভা এবং মহা-রাসলীলানুসরন।

বৃহস্পতবিার সকাল ১০টায় মৌলভীবাজার শহীদ মিনার থেকে আনন্দ র‌্যালির মধ্যদিয়ে তিন দিনব্যাপী রাসোৎসবের উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম। এদিন বিকালে কমলগঞ্জের মাধবপুর ললিতকলা একাডেমীর উন্মুক্ত মঞ্চে অনুষ্টিত হয় হোলি উৎসব।

দ্বিতীয় দিন গতকাল শুক্রবার দুপুরে ছিল বেনিরাস এবং সন্ধ্যায় ছিল কৃর্তি মণিপুরী সন্তান সম্মাননা অনুষ্টান। তিন দিনব্যাপী অনুষ্টানের শেষ দিন আজ শনিবার অনুষ্ঠিত হবে উৎসবের মূল আকর্ষণ মণিপুরী নারীদের অংশগ্রহণে “শ্রী শ্রী কৃষ্ণের মহা-রাসলীলানুসরন”রাসনৃত্য। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় গোষ্টলীলা (রাখালনৃত্য) নৃত্যের মধ্যদিয়ে মহা-রাসলীলা উৎসবের মূল পর্ব শুরু হবে। সন্ধ্যা ৭টায় মহা-রাসলীলা স্মারকের উদ্বোধনের পর রাত সাড়ে ৭ টায় শুরু হবে আলোচনা সভা।

উৎসবের মূল আকর্ষণ ‘মহা-রাসলীলানুসরন’ রাসনৃত্য শুরু হবে রাত সাড়ে ১১টায়।রাসনৃত্য শুরুর পর মন্ডপগুলোতে পালাক্রমে গোধুলীলগ্ন পর্যন্ত চলবে মণিপুরী শিশু ও তরুনী নৃত্যশিল্পীদের সুনিপুণ নৃত্যাভিনয়। প্রতি বছরের অগ্রহায়ণের পূর্ণিমা তিথিতে জাকজমকপূর্ণ পরিবেশে কমলগঞ্জে অনুষ্ঠিত হয় মণিপুরী সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় এ ‘মহা রাসলীলা’ উৎসব। এই উৎসবকে কেন্দ্র করে মণিপুরী লোকেরা আনন্দ উৎসবে মেতে উঠেন। তাদের সঙ্গে অন্য সম্প্রদায়ের লোকেরাও একদিনের এ আনন্দ উৎসবে মেতে ওঠায় কমলগঞ্জ হয়ে উঠে প্রাণবন্ত।

প্রথমবারের মত এবার মাধরপুর জোড়ামন্ডপে তিন দিনব্যাপী রাস উৎসবের আয়োজন করায় মঙ্গলবার থেকেই দেশের প্রত্যন্ত এলাকা থেকে ভক্ত ও দর্শনার্থী কমলগঞ্জে আসতে শুরু করেন। আজ রাসোৎসবের মূল আকর্ষণ রাসলীলার মহা-রাসনৃত্য অনুষ্টানের মহারাত্রির এ আনন্দের পরশ পেতে মণিপুরী সম্প্রদায়ের লোকজনের সঙ্গে অন্যান্য সম্প্রদায়ের হাজার হাজার নারী-পুরুষ,শিশু-কিশোর আজ মিলিত হবেন এ আনন্দ উৎসবে।

এছাড়া সরকারের বিভিন্ন কর্মকর্তা,কবি-সাহিত্যিক,সাংবাদিক,দেশী-বিদেশী দর্শনার্থী,দেশ বরেণ্য ব্যক্তিবর্গ এবং প্রশাসনিক বিভিন্ন কর্মকর্তাদের পদচারনায় আজ মুখরিত হয়ে উঠবে মণিপুরী পল্লী। একটি রাত্রির জন্য সজ্জিত মন্ডপগুলো এদিন হয়ে উঠবে লাখ মানুষের মিলনতীর্থ।রাসোৎসব উপলক্ষে মাধবপুর জোড়া মন্ডপ ও আদমপুরের তেতইগাঁও সানাঠাকুরের মন্ডপের মন্ডপগুলো নিপুন কারুকাজে সাদা কাগজের নকশা আর আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে।

একটি রাত্রির জন্য সাদা কাগজের নকশা আর আলোকসজ্জায় সজ্জিত মন্ডপগুলোতে মধ্যরাত থেকে মণিপুরী শিশু ও তরুনী নৃত্যশিল্পীদের সুনিপুণ নৃত্যাভিনয় রাতভর মন্ত্রমুগ্ধ করে রাখবে ভক্ত ও দর্শনার্থীদের। রাত ভর চাঁদের আলোয় মায়াবী জোৎনায় নূপুরের সিঞ্চনে মুদ্রা তুলবে সুবর্ণ কঙ্কন পরিহীতা রাধা ও গোপিনী রূপের মণিপুরী তরুনীরা। সুরের আবেশে মাতাল হয়ে উঠবে কমলগঞ্জের প্রকৃতি ও মানুষ।

শুধু একটি গোধুলী এবং এক রাতের ধবল জোৎনায় শ্রী কৃষ্ণের প্রেম রস ভক্তদের মাঝে বিলিয়ে দিয়ে নতুন কাল রোববার ভোরে সূর্য উঠার সাথে সাথে শেষ হবে মহারাস উৎসব-এর মিলনমেলা। মণিপুরী মহারাসলীলা সেবা সংঘের সাধারন সম্পাদক শ্যাম সিংহ বলেন, মাধবপুর জোড়ামন্ডপে তিনদিন ব্যাপী সাজানো অনুষ্টানের মূল আকর্ষণ হলো মহা-রাসলীলানুসরন-এর রাসনৃত্য।

আজ রাতের এ অনুষ্ঠানে বিদেশী দর্শনার্থী ছাড়াও দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের ভক্ত ও দর্শনার্থীদের আগমন ঘটবে। জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে হাজার হাজার দর্শনার্থীদের আগমনে গোটা কমলগঞ্জ উৎসবে পরিণত হবে। রাস উৎসব উপলক্ষে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দুটি মন্ডপেই নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। উৎসব উপলক্ষে উভয় স্থানে বসেছে বিরাট মেলা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ