প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফুসফুস বাঁচাতে দিল্লিতে সকালের হাঁটা বারণ করলেন ডাক্তাররা

মরিয়ম চম্পা : সম্প্রতি দিল্লিতে উচ্চ মাত্রায় দূষণ ঝুঁকি বৃদ্ধির ফলে দেশটির শীর্ষস্থানীয় ডাক্তাররা ফুসফুস বাঁচাতে সকালের হাঁটাকে বারণ করেছেন। বিশেষ করে বয়স্কদের ক্ষেত্রে এটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।

ভারতে অতি মাত্রায় ঘণবসতি হওয়াতে বাতাসে বিষাক্ত গ্যাসের পরিমান সাধারণত ২.৩ পিএম পর্যন্ত থাকে। সকালের বাতাসে এর পরিমান বেশি থাকায় এই গ্যাস সহজেই ফুসফুসে প্রবেশ করে শরীরের সর্বস্তরে খুব দ্রæত ছড়িয়ে পরে।

ডাক্তারদের একটি দল এই সচেতনাতামূলক বিবৃতিতে বলেন, ব্যায়াম করা স্বাস্থ্যের জন্য অত্যাবশ্যক কিন্তু বিষাক্ত গ্যাস গ্রহণ করা নয়।

এই প্রচারণাটি মূলত ডা. নরেশ ত্রেহানের নেতৃত্বে একদল কার্ডিয়াক সার্জনদের সমন্বয়ে হয়েছে। এক কার্ডিয়াক সার্জন বলেন, একজন পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তি বিশ্রামরত অবস্থায় সাধারণত প্রতি মিনিটে সর্বোচ্চ ছয় লিটার পরিমান বাতাস নিতে পারেন। কিন্তু যখন ব্যায়াম করা হয় তখন প্রায় ২০ লিটার পরিমান বাতাস নিয়ে থাকেন যেটায় বিষাক্ত গ্যাসের পরিমান বেশি থাকে।

স্যার গঙ্গারাম হাসপাতালের বক্ষ সার্জাারি বিভাগের প্রধান বলেন, এই বিষাক্ত গ্যাসের মধ্যে দিয়ে ম্যারাথন দৌড় প্রতিযোগীতা হলে এতে একজন ব্যক্তির ফুসফুসে প্রায় দুই টেবিল চামচ বিষাক্ত ছাই জমা হতে পারে।

কার্ডিওভাসকুলার এন্ড কার্ডিওথোরাসিক সার্জন ডা. নরেশ বলেন, এক গবেষণায় দেখা গেছে, কিভাবে দিল্লির উচ্চ দূষণসম্পন্ন বিষাক্ত আবহাওয়া একটি সুস্থ্য ও গোলাপী রংয়ের ফুসফুসকে কত দ্রæত কালো করে দিয়েছে। দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত