প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুক্তিযুদ্ধের চেতনা মুক্ত করতেই জেল হত্যা হয়েছিলো (ভিডিও)

ওয়ালি উল্লাহ সিরাজ: জেল হত্যা দিবসের ঘটনার পিছনে সব থেকে বেশি যে কাজ করেছে সে হচ্ছে খন্দকার মোশতাক। আমি যে কথা বলচ্ছি এটা শুধু শুধু বলছি না। এই ঘটনার পিছনে দালিলীক প্রমাণও আছে। তাদেরকে হত্যার পিছনে একটা বড় কারণ হচ্ছে তখন মূল বিষয় ছিলো হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধে যারা নেতৃত্ব দিয়েছে তাদেরকে শেষ করতে হবে। কারণ যারা ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্টের পর যারা ক্ষমতার পাশে ঘুরাঘুরি করেছে তাদের লক্ষ্য ছিলো হচ্ছে বাংলাদেশ মিনি পাকিস্তান হবে। বাংলাদেশ যেন বাংলাদেশ না হতে পারে এই জন্যই জাতীয় চার নেতাকে হত্যা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত্রে চ্যানেল আইয়ের আজকের সংবাদপত্র অনুষ্ঠানে এমন মন্তব্য করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও ইতিহাসবিদ ড সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।

তিনি আরো বলেন, বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীদের একটা তালিকা হয়েছে। সেখানে ৩০ জনের তালিকা হয়েছে। এই তালিকাতে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও নাম রয়েছে। তারা বিভিন্ন বিষয়কে সামনে রেখে এই তালিকা তৈরি করে থাকে। তবে আমার তাদের এই তালিকা তৈরি করার ক্ষেত্রে কিছু প্রশ্ন আছে।

ড সৈয়দ আনোয়ার হোসেন আরো বলেন, আমাদের বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী সম্পর্কে যা বলা হয়েছে বা যে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে এটা ঠিক আছে। কিন্তু মিয়ানমারের প্রধান মন্ত্রী সুচীর যে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে আমি সেটা মেনে নিতে পারছি না। কিভাবে তার জন্য এই স্থান নির্ধারণ করা হলো? সুচী হলো একটা পুতুল সরকার। এটা বিশ্ববাসী জেনে গেছে। সামরিক সরকার তাকে যেভাবে নাড়াচ্ছে সুচী সেইভাবেই নড়ছে। তো সে কিভাবে ক্ষমাধর ব্যক্তি হলেন?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ