প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পেঁয়াজের দাম আরো বাড়তে পারে

জান্নাতুল ফেরদৌসী: লাগামহীনভাবে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। মাত্র একমাসের ব্যবধানে দেশী ও আমদানি করা পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হয়েছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, আগামী দুই সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম কমার কোনো ধরনের সম্ভাবনা নেই, বরণ আরো বাড়বে। তবে নিয়মিত পণ্য না হওয়ায় পেঁয়াজের বাজার নিয়ে কথা বলেননি বাণিজ্য মন্ত্রী। সূত্র : ডিবিসি নিউজ টিভি

আন্তর্জাতিক বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে থাকলেও দেশে পেঁয়াজের দাম আরো বাড়ছে। গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজ রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে মানভেদে বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৯০ টাকায়।

পুরান ঢাকার শ্যাম বাজারে প্রতিদিন পেঁয়াজের আসছে মজুতও কম নয়। তারপরও গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ২০ টাকা। রাজধানীর শ্যাম বাজারে পাইকারি দেশি পেঁয়াজ ৭০ আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। কারওয়ান বাজারে পাইকারি বিক্রি হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ ৭৫ থেকে ৮০ টাকা আর ভারতীয় পেঁয়াজ ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি। খুচরা বাজার মহাখালী কাঁচা বাজারে দেশি পেঁয়াজ ৯০টাকা আর ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজিতে।

ক্রেতারা বলছে, ৫ কেজি পেঁয়াজ ৩৮০ টাকা। আগে জানতাম কোনো উৎসবকে সামনে রেখে দ্রব্যের দাম বাড়ে। কিন্তু এখন কেন এত দাম বৃদ্ধি পেলো?

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুসারে দেশে বছরে পেঁয়াজের চাহিদা ২৪ লাখ টন্ এর মধ্যে ১৮ লাখ টন পেঁয়াজ দেশে উৎপাদন হয়। চাহিদার বাকি ছয় লাখ টন আমদানি করা হয়।

এখন স্টকে আছে ২০ শতাংশ পেঁয়াজ। যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। এই বাজার কমাতে হলে আরো দেড় থেকে দুই মাস সময় লাগবে।

শ্যামবাজার পেঁয়াজ সমিতি সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ মাজেদ বলেন, পেঁয়াজের ক্ষেত্রে আমরা ভারতের ওপরে সম্পূর্ণ নির্ভরশীল হয়ে গেছি। ভারতে যদি কমিয়ে দেয় তাহলে আমরা পেঁয়াজের দাম কমাতে পারবো, আর ভারত যদি বাড়িয়ে দেয় তাহলে পেঁয়াজের দাম বাড়বে।

কিন্তু পেঁয়াজ নিয়মিত পণ্য না হওয়ায় বাণিজ্যমন্ত্রী কোনো কথা বলেননি।

আনিস/

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত