শিরোনাম

প্রকাশিত : ১৭ মে, ২০২২, ১০:২৯ দুপুর
আপডেট : ১৭ মে, ২০২২, ১১:১৯ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

৩ বরেণ্য নাট্যজন একসারিতে বসে দেখলেন মূল্য অমূল্য

নিজস্ব প্রতিবেদক: [২] মঞ্চে এ এক অসাধারণ মুহূর্ত! বাংলাদেশের নাটকের ৩ দিকপাল এক সারিতে একসঙ্গে বসে বহুবছর পর একটি মঞ্চনাটক দেখলেন। দেখে আপ্লুত হলেন নতুন নাট্যদল অনুস্বরের ৩য় প্রযোজনা মূল্য অমূল্য-তে।

[৩] রামেন্দু মজুমদার, মামুনুর রশীদ ও নাসিরুদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু নাটকটির ১৪ প্রদর্শনী দেখতে জড়ো হয়েছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল হলে।

[৪] আর্থার মিলারের লেখা রূপান্তর ও নির্দেশনা দিয়েছেন মোহাম্মদ বারী।

[৫] নির্দেশক মোহাম্মদ বারী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লিখেছেন,

'রামেন্দু দা, নূর (আসাদুজ্জামান নূর) ভাই, মামুন ভাই আর বাচ্চু ভাইকে নাটকটি দেখার জন্য হোয়াটসঅ্যাপে অনুরোধ জানিয়েছিলাম দু'দিন আগে।

হোয়াটসঅ্যাপে নূর ভাই জানালেন তিনি বিদেশে আর বাচ্চু ভাই লিখলেন তিনি চেষ্টা করবেন। মামুন ভাই আজ আসবেন, ফোন করে জানালেন বিকেলে।

প্রফুল্ল মন নিয়ে মেকাপ নিচ্ছি। গ্রিনরুমে হঠাৎ 'এই বারী' বলে হাসতে হাসতে প্রবেশ করলেন মামুন ভাই। তাঁর স্বাস্থ্য একটু ভেঙ্গেছে। কুশল বিনিময় করতে করতেই 'আরে মামুন ভাই...' বলে বাচ্চুভাই'র প্রবেশ। দুই বন্ধু পরস্পরকে পেয়ে দারুন খুশি।  দুজনকে বসার অনুরোধ জানিয়ে বাকী মেকাপটা নিতে যাব, দেখি, দরোজায় দাঁড়িয়ে দাদা; আমাদের সবাইকে হতবাক করে বিনা নোটিসে তিনিও হাজির।

মঞ্চে আলো জ্বলার আগেই যেন আরও আরও আলোকময় হয়ে উঠলো শিল্পকলার গ্রিনরুমটি। আড্ডায় মাতলেন তাঁরা।

মঞ্চনাটকে দর্শকশূন্যতার এই আকালে অনেকদিন পর তাঁরা তিনজন আজ একত্র হয়েছিলেন স্রেফ দর্শক হিসেবে, অনুস্বর-এর মূল্য অমূল্য-এর দর্শক। মেকাপ শেষে গ্রিনরুমে চায়ের আড্ডায় যুক্ত হলাম আমি।

নাটক শেষে তাদের প্রাণস্পর্শি অভিনন্দন, প্রশংসা আর ভালবাসায় সিক্ত হলাম আমরা সবাই। আজ ছিল অনুস্বর-এর স্মরণীয় রাত...'

[৬] নাটকটির প্লট হিসেবে মুনাফাভিত্তিক রাষ্ট্র, সমাজ আর বাজার অর্থনীতির আগ্রাসনে ভেঙ্গে পড়া যৌথ পারিবারিক বোধের চরম মূল্য পরিশোধের বাস্তবতাই উঠে এসেছে।

[৭] দেখা যায়, বাবার ব্যবহৃত পুরনো আসবাবপত্র নিলামে বিক্রি করছে তার দুই পুত্র রঞ্জু ও মঞ্জু। তাদের মাঝে উপস্থিত চতুর নিলামদার খোদাবক্স। কিন্তু মূল উদ্দেশ্য ছাপিয়ে বিপরীতমুখী চরিত্রের দুই ভাইয়ের মধ্যে শুরু হয় অতীত নিয়ে দ্বিধা, বর্তমান নিয়ে হতাশা আর ভবিষ্যত নিয়ে টানাপোড়েন।

[৮] দুই ভাইয়ের ব্যক্তিত্বের এই দ্বন্দ্ব আর যুক্তি-তর্কের মাঝে উঠে আসে আদর্শিক পাকচক্র, আসে লোভ, শঠতা, অনিশ্চয়তা, ষড়যন্ত্র আর হতাশাগ্রস্ত সময়ের বয়ান।

[৯] অপরাধবোধ আমাদের সবাইকে এক সময় দাঁড় করিয়ে দেয় সময়ের আয়নার সামনে। সম্পর্কের মাঝেও কি তাহলে শেষ পর্যন্ত প্রশ্ন আসে জয়-পরাজয়ের, নাকি তা টিকিয়ে রাখার চেষ্টায় কাউকে না কাউকে দিতে হয় জীবনের অমূল্য মূল্য।
 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়