শিরোনাম

প্রকাশিত : ১৭ মে, ২০২২, ০৫:০৩ বিকাল
আপডেট : ১৭ মে, ২০২২, ০৫:০৭ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

উৎক্ষেপণের ৩ বছরে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের আয় ৩০০ কোটি টাকা

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট

শাহীন খন্দকার: [২] উৎক্ষেপণের প্রথম তিন বছরে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ থেকে ৩০০ কোটি টাকার বেশির আয় করার কথা জানিয়েছেন, বাংলাদেশ স্যাটে লাইট কোম্পানি লিমিটেড বিএসসিএল। বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড জানিয়েছে দেশের প্রথম এই কৃত্রিম উপগ্রহ গত তিন বছরে ‘কোনো আয় করতে পারেনি’ বলে যে খবর এসেছে, তা ‘সঠিক নয়’ জানিয়ে সোমবার কোম্পানির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়া হয়। সেখানে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট গত তিন বছর ধরেই আয়ের ধারায় রয়েছে।

[৩] বর্তমানে কোম্পানির মাসিক আয় প্রায় ১০ কোটি টাকা, যার প্রায় পুরোটাই দেশীয় বাজার থেকে অর্জিত হচ্ছে। ক্রমান্বয়ে এই আয় আরও বৃদ্ধি পাবে। ২০১৮ সালের ১২ মে পৃথিবীর কক্ষপথে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ উৎক্ষেপণের মাধ্যমে নতুন যুগে প্রবেশ করে বাংলাদেশ।

[৪] ওই সময়ে স্যাটেলাইট তৈরি ও উৎক্ষেপণে খরচ হয়েছিল প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার মত। ২০১২ সালের ফিজিবিলিটি স্টাডিতে সাত বছরের মধ্যে এই খরচ উঠিয়ে আনার পরিকল্পনা ছিল সরকারের। বিএসসিএলের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শাহজাহান মাহমুদ বলেন, ২০১২ সালে ফিজিবিলিটি স্টাডির সময় একটা লক্ষ্য ধরা হয়েছিল,সে সময় বলা হয়েছিল ৭বছরে টাকাটা উঠে আসবে। কিন্তু আমরা স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণই করলাম ২০১৮ সালে এসে।

[৫] বিডিনিউজ সংবাদ সূত্রে প্রকাশ, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট যখন উৎক্ষেপণ করা হয়, তখন আমরা ছিলাম ৫৭তম দেশ। এখন সেটা ৭৫-৭৬টি দেশে পৌঁছেছে। এ কারণে বাজারে ব্যান্ডউইথের সাপ্লাই অনেক বেড়ে গেছে। চাহিদা কম থাকায় আমরা বিক্রি সেভাবে করতে পারছি না। করোনাভাইরাস মহামারীও বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের বাজার সম্প্রসারণকে বাধাগ্রস্ত করেছে বলে জানান কোম্পানির সিইও। 

[৬] তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ৪০টি ট্রান্সপন্ডারের মধ্যে ২০টি দেশে এবং ২০টি দেশের বাইরে বিক্রি করার কথা ছিল। এখন পর্যন্ত স্যাটেলাইটের মোট ৪০টি ট্রান্সপন্ডারের ১৫-১৬টি বিক্রি করতে পেরেছে কোম্পানি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়