শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৩ জুন, ২০২২, ০৯:৪৮ সকাল
আপডেট : ২৩ জুন, ২০২২, ১২:৩৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পরিবার নিয়ে অবকাশে মেসি ও তার বার্সা সতীর্থ ফ্যাব্রেগাস

মেসি ও তার বার্সা সতীর্থ ফ্যাব্রেগাস

স্পোর্টস ডেস্ক: মেসি বার্সেলোনা ছেড়েছেন ২০২১ সালে তারও সাত বছর আগে অর্থ্যাৎ ২০১৪ সালে কাতালান ক্লাবটি ছেড়েছেন স্প্যানিশ ফুটবলার সেস ফ্যাব্রেগাস। তবে দুই জনের বন্ধুত্বটা এখনো আগের মতই রয়েছে। উভয়েই পরিবার নিয়ে একসাথে অবকাশ যাপন করছেন দ্বীপ ইবিজায়।
ফুটবলারদের হাতে এখন অফুরান অবসর। চলছে দলবদলের মৌসুম, নতুন মৌসুম শুরু হতে অনেকটা সময় বাকি। আগামী মৌসুমের ঘরোয়া, মহাদেশীয় লিগগুলোর সঙ্গে বিশ্বকাপের ঝক্কিও সামলাতে হবে ফুটবলারদের। তাই সবাই যে যার মতো ছুটি কাটাচ্ছেন, পরিবারকে সময় দিচ্ছেন, আনন্দ করছেন। এই যেমন দীর্ঘদিনের বন্ধু লিওনেল মেসি এবং সেস ফ্যাব্রেগাস এখন স্পেনের পর্যটন দ্বীপ ইবিজায় পরিবার সমেত দারুণ সময় কাটাচ্ছেন।

ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল জানাচ্ছে, ছুটি কাটাতে গিয়ে পকেটের দিকে তাকাচ্ছেন না মেসি-ফ্যাব্রেগাস। ইবিজায় বিশালাকারের এক ম্যানশন ভাড়া করে সেখানে অবস্থান করছেন তারা, যার জন্য সপ্তাহান্তে তাদের খরচ করতে হচ্ছে ২ লাখ ৬০ হাজার পাউন্ড বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩ কোটি টাকা। বিলাসবহুল ওই ম্যানশনে রয়েছে ছয়টি শোবার ঘর, একটি জিম, ২০ মিটার দীর্ঘ সুইমিং পুল, আর অতিথিদের সেবায় সর্বক্ষণ নিয়োজিত আছে ২২ জন কর্মচারী।

এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মেসি এবং ফ্যাব্রেগাসের শেয়ার করা ছবিতে দেখা গেছে, একটি বিলাসবহুল ইয়টে সময় কাটাচ্ছেন তারা। ডেইলি মেইল জানিয়েছে, শালিমার ২ নামের সেই ইয়টের জন্য প্রতিদিন ৮ হাজার ৬০০ পাউন্ড বা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১০ লাখ টাকা।

মেসি এবং ফ্যাব্রেগাসের বন্ধুত্বের শুরু সেই কিশোর বয়সেই। বার্সেলোনার যুব দলের হয়ে খেলার পর সিনিয়র দলের হয়েও ২০১১-১৪ পর্যন্ত একসঙ্গে খেলেছেন তারা।

ছুটি কাটিয়ে পিএসজির প্রাক-মৌসুম ক্যাম্পে যোগ দেবেন মেসি। আর গত মৌসুমে ফরাসি ক্লাব মোনাকোর সঙ্গে চুক্তি শেষ হয়ে যাওয়ায় নতুন ক্লাবের সন্ধান করছেন ফ্যাব্রেগাস।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়