শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৫ মে, ২০২২, ০১:৪৭ রাত
আপডেট : ২৫ মে, ২০২২, ০১:০৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এক জালে ধরা পড়ল কচ্ছপ-ডলফিন

একটি বিশাল আকৃতির সামুদ্রিক কচ্ছপ অপরটি ইরাবতি ডলফিন/ছবি: সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক: ভোলার দক্ষিণের সাগর মোহনায় এক জালে ধরা পড়েছে ২টি বিরল প্রজাতির জলজ প্রাণী। একটি বিশাল আকৃতির সামুদ্রিক কচ্ছপ অপরটি ইরাবতি ডলফিন।

মঙ্গলবার (২৪ মে) সকালে হাতিয়ার নিঝুমদ্বীপ থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দক্ষিণের সাগরে প্রাণী দুটি ধরা পরে। অবশ্য পরে প্রাণী দুটিকে সমুদ্রে অবমুক্ত করা হয়েছে।

চরফ্যাশনের চর কুকরি মুকরি ইউনিয়নের জেলে এনায়েত হোসেন মাছ ধরতে সমুদ্রে জাল ফেলেন। ওই জালে ৩০ কেজি ওজনের একটি কচ্ছপ ও প্রায় ৯০ কেজি ওজনের একটি ডলফিন আটকে যায়। পরে প্রাণী দুটিকেই জীবিত টেনে তোলেন জেলেরা। বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে তারা কচ্ছপ ও ডলফিনকে সমুদ্রে অবমুক্ত করে দেন। 

এদিকে, ২০ মে থেকে সমুদ্রে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা চলছে। এর মধ্যে ওই ট্রলারে করে মাছ ধরতে যান জেলেরা।
 
ওয়ার্ল্ড ফিস বাংলাদেশের ইকোফিস-২ এর সহকারী গবেষক মোনাইম হোসাইন বলেন, কচ্ছপটি ওলিভ রিডলি ও ডলফিনটি ইরাবতি প্রজাতীর ছিল। জেলেদের তথ্যানুযায়ি কচ্ছপটির ওজন ৩০ কেজি ও ডলফিনটি ছিল প্রায় ৯০ কেজি। 

ইউএসএআইডি’র আওতায় নিঝুম দ্বীপ সামুদ্রিক সংরক্ষিত এলাকায় এনায়েত হোসেনসহ ১০ জন জেলে সিটিজেন সাইন্টিস্ট মৎস্য সম্পদ ও সামুদ্রিক জীববৈচিত্র সংরক্ষণে কাজ করে আসছেন। যারা ইকোফিস প্রকল্পের আওতায় সামুদ্রিক জীববৈচিত্র সংরক্ষণে প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্ব এবং করণীয় সম্পর্কে জেলেদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছেন। 

এখন পর্যন্ত ৫০০ জন সমুদ্রগামী জেলেদের তারা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। যাতে এসব জেলেরা জালে ধরা পড়া সামুদ্রিক কচ্ছপ, শাপলা পাতা মাছ, হাঙর ও ডলফিন রক্ষায় সচেষ্ট হন এবং এগিয়ে আসেন।

  • সর্বশেষ