শিরোনাম
◈ মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে উত্তাল সিয়েরা লিওন, নিহত অন্তত ২৭ ◈ নিম্নআয়ের মানুষ ১০০ টাকায় কবর দিতে পারবেন ডিএনসিসির কবরস্থানে ◈ প্রেমের টানে দিনাজপুরে অস্ট্রিয়ান প্রকৌশলী ◈ আইএসের বোমা হামলায় মারা গেছেন তালিবানের এক শীর্ষ আলেম ◈ কুষ্টিয়ায় হত্যা মামলায় চার জেএমবিসহ ছয় জনের যাবজ্জীবন ◈ ঢাকার ৪ কেন্দ্রে হবে 'বি' ইউনিটের গুচ্ছ পরীক্ষা ◈ রাতে হাতে মেহেদী দিয়ে ঘুমালেন কিশোরী, সকালে মা দেখলেন ঝুলন্ত মরদেহ ◈ ‘হাওয়া’ সিনেমায় বন্য প্রাণী আইন লঙ্ঘিত হয়েছে: বন্য প্রাণী অপরাধ দমন ইউনিট ◈ ব্যাংকক পৌঁছলেন গোটাবায়া রাজাপাকসে ◈ নারী চিকিৎসককে গলা কেটে হত্যা, প্রেমিক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০৮:০৯ রাত
আপডেট : ০৪ জুলাই, ২০২২, ০৮:০৯ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ঈদকে কেন্দ্র করে মহাসড়কে ডাকাতির পরিকল্পনা, গ্রেপ্তার ৯

ডাকাত দল

সুজন কৈরী: আসন্ন ঈদুল আযহাকে কেন্দ্র করে মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতির অভিযোগে ৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১। রোববার রাতে গাজীপুরের গাছা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

র‌্যাব জানায়, ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি, ছিনতাই চক্রের তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- শহিদুল ইসলাম (৩৪), আয়নাল মিয়া ওরফে আয়নাল হক ওরফে আয়নাল (৩৯), আন্ডু মিয়া (৫৭), আজিজুল ইসলাম ওরফে আইনুল (৩২), উজ্জ্বল চন্দ্র মহন্ত (২৭), শাহিন ওরফে সজিব (৩৩), শহিদ (৩৮), রনি সরকার (২৪) ও আব্দুল হাকিম ওরফে গাটু ওরফে আব্দুল গাটু মিয়া (৪০)।

তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি বিদেশি পিস্তল, ১টি ওয়ান শুটারগান, ১টি ম্যাগাজিন, ২ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, ২টি ওয়ান শুটার গানের গুলি, ২টি ছোড়া, ১টি রামদা, ১টি দা, ৫টি গামছা, ১টি রশি, ১টি করাত, ২টি টর্চলাইট, ১টি বস্তা, ১১টি মোবাইল ফোন ও নগদ ১ হাজার ৫০০ টাকা জব্দ করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, গ্রেপ্তারকৃতরা একটি সংঘবদ্ধ ডাকাত চক্রের সক্রিয় সদস্য। চক্রটির সদস্য সংখ্যা ১০-১২ জন। এ চক্রের সর্দার শহিদুল ইসলাম। তার অন্যতম সহযোগী আন্ডু ও আয়নাল যারা ডাকাতির পরিকল্পনা এবং অন্যান্য ডাকাতদের সংঘবদ্ধ করে। তারা গত ৫ বছর ধরে একই সঙ্গে সংঘবদ্ধ হয়ে রংপুর এবং গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি করছিলো। প্রথমে তারা চুরি এবং ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত থাকলেও বিভিন্ন দফায় জেলে থাকার কারণে গত কয়েক বছর ধরে ডাকাতি পেশায় জড়িয়ে পড়ে।

তিনি বলেন, ডাকাত সরদার শহিদুল আগে রিকশা চালাতেন। পরে বেশি অর্থের লোভে ডাকাতির পেশায় জড়িয়ে পড়েন। তারা সাধারণত প্রতি মাসে ২-৩ বার ৬-৯ জনের দলে সংঘটিত হয়ে প্রথম দিকে রংপুর ও পরে গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় সড়ক ও মহাসড়ক কেন্দ্রিক ডাকাতির সঙ্গে জড়িত। ডাকাতির কৌশল হিসাবে তারা সড়কগুলোর নির্জন স্থানে রাতের আধারে গাছ কেটে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতো। তারা ইজিবাইক, অটোরিকশা, সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল, ছোট পিকআপসহ ছোট আকারের যানবাহনগুলোকে টার্গেট করে অস্ত্রের মুখে ভিকটিমদের জিম্মি করে ডাকাতি করত।

চক্রটি আসন্ন ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে মহাসড়কে বড় আকারে ডাকাতি করার জন্য গাজীপুর জেলার গাছা থানাধীন ঝাঁজর এলাকায় সংঘটিত হয়েছিলো। শহিদুলের বিরুদ্ধে ডাকাতি, ডাকাতির প্রস্তুতি, ধর্ষণসহ ৬টি মামলা রয়েছে।

লে. কর্নেল আব্দুল্লাহ আল মোমেন আরো বলেন, ডাকাত চক্রটির সর্দর শহিদুল ইসলামের অন্যতম সদস্য আয়নাল। তিনি দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে ছিনতাই ও ডাকাতির সঙ্গে জড়িত। এর আগে অটোরিকশা চালাতেন। আয়নালের মূল দায়িত্ব ছিল জায়গা নির্ধারণ এবং অন্যান্য ডাকাত সদস্যদের সংঘবদ্ধ করা।

এছাড়া ডাকাতির স্থান এবং সময় নির্ধারিত হলে অন্যান্য ডাকাত সদস্যদের নিজ এলাকা থেকে নিয়ে এসে তার আবাসস্থলে অবস্থান করাতেন। সাধারণত ডাকাতির পর লুণ্ঠিত মালামাল ডাকাত সর্দারের নির্দেশে অন্যান্য সদস্যদের মাঝে বণ্টন করা হতো। আয়নালের বিরুদ্ধে চুরি ও ডাকাতিসহ ৪টি মামলা রয়েছে।

চক্রের পরামর্শদাতা হিসেবে আন্ড মিয়া কাজ করতেন উল্লেখ করে র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক বলেন, আন্ড ডাকাত সর্দারের অন্যতম সহযোগী এবং পরামর্শদাতা। তিনি ১৯৯৫ সাল থেকে চুরি এবং ডাকাতির চক্রের সাথে জড়িত। এর আগে তার একটি চায়ের দোকান ছিলো। তার বিরুদ্ধে হত্যা ও ডাকাতিসহ ৪টি মামলা রয়েছে।

ডাকাতির পর চক্রদের সদস্যদের জন্য যানবাহনের ব্যবস্থা করতেন গ্রেপ্তার শহিদ। গত তিন বছর ধরে এই চক্রের সঙ্গে জড়িত শহিদ। ডাকাত চক্রে তিনি ডাকাতির পর পলায়ন পরিকল্পনাকারী এবং পলায়নে সহায়তার জন্য যানবাহনের ব্যবস্থা করতেন। তার বিরুদ্ধে হত্যা চেষ্টা এবং চুরিসহ ১২টি মামলা রয়েছে।

র‌্যাব-১ সিও বলেন, ডাকাত চক্রের সদস্য শাহিনের বিরুদ্ধে দস্যুতাসহ ২টি, উজ্জ্বলের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলাসহ ২টি, আজিজুলের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতনের ১টি, আব্দুল হাকিম এবং রনি সরকারের বিরুদ্ধে চুরির ১টি করে মামলা রয়েছে। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়