শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৩ জুলাই, ২০২২, ০৮:২৭ রাত
আপডেট : ০৩ জুলাই, ২০২২, ০৮:২৭ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

নির্মাণ শ্রমিক পেটানোর ঘটনায়

কলাপাড়ায় চেয়ারম্যান ও ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

কলাপাড়ায় চেয়ারম্যান ও ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

নিনা আফরিন : পটুয়াখালী-০৪(কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনের এমপি আলহাজ্ব মহিব্বুর রহমান মহিবের ভাইয়ের চার র্নিমান শ্রমিককে পিটিয়ে আহত করার ঘটনার কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

গত ৩ জুন নির্মাণাধীন ভবনের ইঞ্জিনিয়ার মো. অহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে কলাপাড়া থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন। ওই মামলায় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের ছেলে রাহাতকেও আসামী করা হয়েছে। এদিকে শ্রমিক পেটানোর ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পরলে তোলপার শুরু হয় রাজনৈতিক মহলে। মামলার সত্যতা স্বীকার করে কলাপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. জসিম বলেন-তদন্ত করে ব্যবসস্থা নেবো। 

মামলায় বাদী বলেন, নির্মানাধীন ভবনের ৬ তলার সিলিং পলেস্তার কাজ করছিল শ্রমিকরা। এসময় বাতাসে বালু উড়ে গিয়ে পার্শ্ববর্তী কলাপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের বাস ভবনের উপর পরে। এতে তিনি শ্রমিকদের গালমন্দ করেন। এক পর্যায়ে তিনি  ক্ষিপ্ত হয়ে ভবনের উপরে উঠে নিজ হাতে ষ্টীলের পাইপ দিয়ে কর্মরত শ্রমিকদের এলোপাতারি পিটিয়ে আবুল কালাম(৫০) ও চুন্নু মিয়া(৩৫) খাদেম(৬০) ও উজ্জ্বলকে(৩২)আহত করেন। আহতর পর তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দিয়ে নিরাপত্তা জনিত কারনে বাড়ী পাঠানো হয়েছে। 

বাদী আরও বলেন, ভবন র্নিমানের নিয়ম-নীতি মেনে ভবন র্নিমান কাজ চলছে। কিন্তু গত শুক্রবার দুপুরে উপজেলা চেয়ারম্যান ও তার ছেলে কোন কারন ছারাই চার শ্রমিককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে কাজ বন্ধের হুমকী দিয়ে গেছেন। এর আগেও তিনি একাধিকবার শ্রমিকদের গালমন্দ করেছেন। মশিউর ইনফ্রাস্টাকচার লিঃ এর ডেপুটি ম্যানেজার  ইঞ্জিনিয়ার মো. জামাল হোসেন বলেন-প্রতিদিনের মত শুক্রবার ভবনের পলেস্তারের কাজ করছিল শ্রমিকরা। বালু উড়ে কলাপাড়া উপজেলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসানের বাসায় গিয়ে পরলে তিনি চার র্নিমান শ্রমিককে স্টিলের রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করে। বর্তমান কাজ বন্ধ রয়েছে।

অপরদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ বলছেন, বর্তমান সময়ে উল্লেখিত আসনের সাবেক এমপি ও পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মাহবুবুর রহমানের সাথে বর্তমান এমপি মহিব্বুর রহমানের রাজনৈকি দ্বন্ধ দৃশ্যমান হয়ে উঠেছে। যা নিয়ে উপজেলার রাজনৈতিক অঙ্গন এখোন উত্তপ্ত। সাবেক এমপি মাহাবুবুর রহমান ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রাবিকুল  আহসান ঘনিষ্ট বন্ধু। যে কারনে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বসবর্তী হয়ে তিনি শ্রমিক পেটানোর কাজে লিপ্ত হয়েছেন। 

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে অভিযুক্ত কলাপাড়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম রাকিবুল আহসান-ভবন নির্মানে নিয়ম-নীতি না মেনে স্থানী এমপি মহিব্বুর রহমানের বড় ভাই ইঞ্জিনিয়ার তৌহিদুর রহমান(সিআইপি) আমার বাস ভবনের পাশে বহুতলা ভবন নির্মান করছেন। প্রতিনিয়ত নির্মান সামগ্রী ছিটকে পরে আমার বাসার পরিবেশ নষ্ট করছে এবং আমার পরিবারের মাঝে আতংক ও ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। এরআগেও আমার বাসার গৃহপরিচারিকা আহত হয়েছে।

 ঘটনার দিন আমার গায়ে র্নিমান সামগ্রী পরেছে। যা নিয়ে একাধিকবার নির্মান কাজে সর্তক করা হলে তারা তা মানেনি। তাই একটি কাঠের টুকরো হাতে নিয়ে শ্রমিকদের মৃদু আঘাত করেছি, এলোপাতারি নয়। ছোট্ট একটি ঘটনা স্থানীয় এমপি সাহেব বড় করে প্রচার করে আমাকে হেনস্তা করতে চাইছেন,যা ঠিক নয়।

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়