শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৪ জুন, ২০২২, ১২:৪৫ দুপুর
আপডেট : ২৪ জুন, ২০২২, ১২:৫৯ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ক্যাপিটল হিলে হামলার পর মিথ্যা অভিযোগ প্রতিষ্ঠায় বিচার বিভাগের সাহায্য চেয়েছিলেন ট্রাম্প

রাশিদুল ইসলাম : ২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের কাছে পরাজিত হওয়ার ফল পাল্টে দিতে চেয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। নির্বাচনে কারচুপি হওয়ার মিথ্যা দাবিকে প্রতিষ্ঠিত করতে বিচার বিভাগের সহযোগিতা পাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার ক্যাপিটল হিলে হামলাসংক্রান্ত শুনানিতে তদন্ত দলের পক্ষ থেকে এসব কথা বলা হয়েছে। 

২০২০ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট প্রার্থী জো বাইডেন জয়ী হলে নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার পরাজয় মানতে অস্বীকৃতি জানান। বাইডেনের জয়ের সত্যায়নে ২০২১ সালের ৬ জানুয়ারি কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশন বসে। এ প্রক্রিয়া ঠেকাতে ট্রাম্পের ইন্ধনে তার উগ্র সমর্থকেরা কংগ্রেস ভবনে (ক্যাপিটল হিল) সহিংস হামলা চালায়।
এ ঘটনা তদন্তের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদে একটি কমিটি গঠন করা হয়। সম্প্রতি মার্কিন কংগ্রেসে এ নিয়ে শুনানি শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার ছিল ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনা নিয়ে কংগ্রেসে চলমান শুনানির পঞ্চম দিন। এদিন তদন্ত কমিটি ট্রাম্প প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তার সাক্ষ্য উপস্থাপন করে বলেছে, ক্যাপিটল হিলে হামলা হওয়ার আগে নির্বাচনে জালিয়াতি হওয়ার মিথ্যা দাবিকে প্রতিষ্ঠিত করার জোর প্রচেষ্টা চালিয়েছিলেন ট্রাম্প।

তদন্ত কমিটির চেয়ারম্যান বেনি থম্পসন বলেন, ‘বিচার বিভাগ শুধুই তদন্ত করুক, সেটা ট্রাম্প চাননি। তিনি চেয়েছিলেন নির্বাচনে জালিয়াতি হয়েছে বলে ভিত্তিহীনভাবে তিনি যে দাবি করেছেন, বিচার বিভাগ যেন সে মিথ্যা দাবিকে বৈধতা দেয়।’

থম্পসন আরও বলেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার ব্যক্তিগত রাজনৈতিক এজেন্ডাকে এগিয়ে নিতে বিচার বিভাগকে ব্যবহার করতে চেয়েছিলেন।

নির্বাচনের পর ট্রাম্প প্রশাসনের অ্যাটর্নি জেনারেল বিল বার পদত্যাগ করলে ভারপ্রাপ্ত অ্যাটর্নি হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন জেফ্রে রোজেন। তদন্ত কমিটিকে দেওয়া জবানবন্দিতে তিনি বলেন, ওই নির্বাচনের প্রতি মানুষের আস্থা কমিয়ে দিতে বিচার বিভাগকে চাপ দিচ্ছিলেন ট্রাম্প।

রোজেন বলেন, ২০২০ সালের ডিসেম্বরের শেষ থেকে শুরু করে ২০২১ সালের জানুয়ারির শুরু পর্যন্ত ডোনাল্ড ট্রাম্প তার সঙ্গে প্রায় প্রতিদিন যোগাযোগ করতেন। একদিকে তিনি নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে বিশেষ উপদেষ্টা নিয়োগ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। অন্যদিকে তিনি বেশ কয়েকবারই অনুরোধ করেছেন যেন আমি তার প্রচারবিষয়ক উপদেষ্টা রুডি গিলানির সঙ্গে দেখা করি। একদিকে তিনি জানতে চাচ্ছিলেন, বিচার বিভাগ সুপ্রিম কোর্টে মামলা করবে কি না। অন্যদিকে এ ব্যাপারে প্রকাশ্য বিবৃতি দেওয়া ও সংবাদ সম্মেলন করা নিয়ে প্রশ্ন উঠছিল বলে যান রোজেন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়