শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৩ জুন, ২০২২, ০৪:১৭ দুপুর
আপডেট : ২৩ জুন, ২০২২, ০৪:১৭ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে ১৮টি প্রদেশেই বন্যা, নিহত ‘৪০০’

আফগানিস্তানে বন্যা

ইমরুল শাহেদ: বুধবার আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলে ৬ দশমিক ১ মাত্রার ভূমিকম্পে নিহতের সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়েছে। ভূমিকম্পের মতো ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে বন্যার কবলে পড়েছে আফগানিস্তানের মানুষ। বুধবারই এই তথ্য জানিয়েছে দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়। টোলোনিউজ

আফগানিস্তানের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশের ১৮টিতেই দেখা দিয়েছে আকস্মিক বন্যা। এ বন্যায় সে দেশে এখন পর্যন্ত ৪০০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়।

আফগানিস্তানের বন্যাকবলিত প্রদেশগুলো হলো- কুনার, নানগারহার, নুরিস্তান, লাঘমান, পানশির, পারওয়ান, কাবুল, কাপিসা, ময়দান ওয়ার্দাক, বামিয়ান, গজনি, লোগার, সামানগান, সার-ই-পুল, তাখার, পাকতিয়া ও দাইকুন্দি। পাকতিয়া এবং নানগারহার ইতোমধ্যেই ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত হয়েছে। 

প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার ডেপুটি মন্ত্রী মাওলাওয়াই শরফুদ্দিন মুসলিম বলেছেন, ‘বন্যায় আহতদের হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। বন্যাকবলিতদের দুর্যোগপূর্ণ এলাকা থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে এবং তাদেরকে তাবু সরবরাহ করা হয়েছে।’ 

কুন্দুজের অধিবাসী আহমাদুল্লাহ গণমাধ্যমকে বলেন, কুন্দুজের শত শত একর জমি বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে এবং এখনও বন্যা পরিস্থিতির দৃশ্যমান কোনো উন্নতি হয়নি। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় বলেছে, স্থানীয় বাসিন্দারা অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। 

নানগারহার প্রদেশেল আর্চিন জেলার বাসিন্দা হামিদুল্লাহ শিনওয়ারি বলেন, গত মঙ্গলবার রাত থেকে মুষলধারে বৃষ্টি হচ্ছে। অতি বর্ষণে বাড়ির ছাদ ধসে আর্চিন জেলায় এক জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন আরও পাঁচ জন।

আফগানিস্তানের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মাওলাউই শরফুদ্দিন মুসলিম টোলো নিউজকে বলেন, অতি বর্ষণ ও আকস্মিক বন্যায় আহতদের বেশির ভাগকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বন্যার কারণে যাদের ঘরবাড়ি ভেঙে পড়েছে, তাদের সরকারের পক্ষ থেকে তাঁবু দেয়া হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়