শিরোনাম
◈ ১৭ বছরেও সিরিজ বোমা হামলার বিচার শেষ হয়নি ◈ কর্তৃপক্ষের আশ্বাস পেয়ে আন্দোলন প্রত্যাহার করলেন খুবি শিক্ষার্থীরা ◈ নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ড পুনর্গঠন ◈ কুয়াকাটায় অনির্দিষ্টকালের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ বন্ধ ঘোষণা ◈ ছাত্রদের মারধর করায় ট্রেন অবরোধ, দুই সহকারী চেকার সাসপেন্ড ◈ দেশের মানুষ এখন অনেক শান্তিতে আছে : সমাজকল্যাণমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীনতা পেতাম না: রণজিৎ কুমার রায় এমপি ◈ উত্তরায় গার্ডার পড়ে নিহত ৪ জনের দাফন জামালপুরে সম্পন্ন ◈ দিরাইয়ে বসতঘর থেকে যুবকের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার ◈ ইউক্রেন যুদ্ধে মার্কিন অস্ত্রের কোনো প্রভাব পড়েনি: রাশিয়া  

প্রকাশিত : ২৫ মে, ২০২২, ১২:৫৮ দুপুর
আপডেট : ২৫ মে, ২০২২, ০৪:০৫ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে টেক্সাসের স্কুলে বন্দুক হামলা

রাশিদুল ইসলাম : [২] নর্থ ডাকোটায় সালভাদর রামসের জন্ম, ১৮ বছরের এ তরুণ বাস করতে উভালদেতে। রব এলিমেন্টারি স্কুলে গুলি চালানোর সময় সে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের গুলিতে মারা যায়। ডেইলি মেইল

[৩] স্কুলে যাওয়ার আগে রামোস তার দাদীকে গুলি করে। তারও আগে রামোস ইনস্টাগ্রামে তার বন্দুকের ছবি পোস্ট করে এবং শুটিংয়ের কিছুক্ষণ আগে তিনি একটি মেয়েকে বার্তাও পাঠান। ওই মেয়েটিকে স্পষ্ট করে রামোস স্কুলে হামলার ব্যাপারে কিছু বলেননি। 

[৪] বেশকিছু বন্দুকের ছবি দিয়ে ওই মেয়েটিকে রামোস জানায় কিছু একটা করতে যাচ্ছেন তিনি। এসব বন্দুক ছিল রামোসের লাইসেন্সকৃত।

[৪] মেয়েটি জানায় রামোস তার বন্ধু ছিল না এবং সে তাকে ভয় পেত। মেয়েটি রামোসকে জানায়, আমি আপনাকে খুব কমই চিনি এবং আপনি আমাকে কিছু বন্দুক সহ একটি ছবিতে ট্যাগ করেছেন।

[৫] টেক্সাসের গভর্নর গ্রেগ অ্যাবট বলেছেন, বন্দুকধারী রামোসের শরীরের বর্ম পরা ছিল এবং একটি হ্যান্ডগান ও সম্ভবত একটি রাইফেল নিয়ে সে স্কুলে প্রবেশ করে গুলি চালাতে থাকে।  

[৬] উভালদে হাই স্কুলের ছাত্র ছিল রামোস। হাই স্কুলে তার এক বন্ধু বলেছেন যে তাকে তার জামাকাপড় এবং তার পরিবারের আর্থিক পরিস্থিতি নিয়ে বিরক্ত করা হয়েছিল। তিনি ওয়েন্ডিসে কাজ করতেন, যেখানে কর্মীরা তাকে শান্ত বলে অভিহিত করে। 

  • সর্বশেষ