শিরোনাম
◈ তৃণমূলের কর্মসূচি সফলে বিএনপির ১০ টিম গঠন ◈ গার্ডার দুর্ঘটনায় দোষীদের শাস্তিমূলক ব্যবস্থায় আপত্তি থাকবে না: চীনা রাষ্ট্রদূত ◈ নারীর পোশাক ‘উস্কানিমূলক’! যৌন নিগ্রহের অভিযুক্তকে জামিন দিয়ে বিতর্কে ভারতের আদালত ◈ পাকিস্তান-আফগানিস্তান অঞ্চলে সেনা মোতায়েন করতে চায় চীন ◈ রোহিঙ্গাদের ফ্ল্যাট দেওয়ার কথা বলেও পিছু হঠলো দিল্লি ◈ একযোগে ১৪৬ কনস্টেবলকে ঢাকায় বদলি ◈ জিয়া জড়িত না থাকলে খুনীরা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সাহস পেত না: কাদের ◈ ইসরাইলের সঙ্গে পূর্ণ কূটনৈতিক সম্পর্কে ফিরে গেল তুরস্ক ◈ ইউক্রেনে আটক পশ্চিমা অস্ত্রের প্রদর্শনী করল রাশিয়া ◈ গার্ডার পড়ার ঘটনার সময় ক্রেনটি চালাচ্ছিলেন চালকের সহকারী রাকিব: র‌্যাব

প্রকাশিত : ১৮ মে, ২০২২, ০৬:১৩ বিকাল
আপডেট : ১৮ মে, ২০২২, ০৬:১৩ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

১ জুন থেকে ফের চালু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী ট্রেন

বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী ট্রেন

মাছুম বিল্লাহ: [২] আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে আসছেন ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। তার ওই সফরের সময় করোনার কারণে প্রায় দুই বছর বন্ধ থাকা বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেন ফের চালু হবে। 

[৩] মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়া এ খবর দিয়েছে। পত্রিকাটি লিখেছে, দুই দেশের মধ্যে মৈত্রী  এক্সপ্রেস, বন্ধন এক্সপ্রেস এবং ঢাকা-নিউ জলপাইগুড়ি রুটে মিতালি এক্সপ্রেস চলাচল ফের শুরু হবে।

[৪] মহামারির আগে ঢাকা-কলকাতা রুটে মৈত্রী এক্সপ্রেস সপ্তাহে পাঁচ দিন এবং খুলনা-কলকাতা রুটে বন্ধন এক্সপ্রেস দুই সপ্তাহ পরপর চলাচল করত। কিন্তু করোনার প্রকোপে বন্ধ হয়ে যায় সেগুলো।

[৫] ট্রেন দুটি চালুর সময় বাংলাদেশ ও ভারত একটি করে রেক দিয়েছিল। সবশেষ চালু হওয়া মিতালি এক্সপ্রেসের রেক দিয়েছে ভারত। ২০২১ সালের মার্চে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যৌথভাবে ঢাকা-নিউ জলপাইগুড়ি রুটের ট্রেনটি উদ্বোধন করেছিলেন।

[৬] পত্রিকাটি লিখেছে, বাংলাদেশিদের কাছে মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস বেশ জনপ্রিয়। প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে ভারতে চিকিৎসা করাতে যান লাখ লাখ মানুষ। শারীরিক জটিলতার কারণে অনেকের প্লেনে চড়ায় নিষেধাজ্ঞা থাকে, অনেকের আকাশপথে যাওয়ার সামর্থ্য থাকে না। আবার সড়কপথে যাওয়ার ধকলও নিতে পারেন না অনেকে। এ পরিস্থিতিতে তাদের একমাত্র ভরসা দু-দেশের মধ্যে চলাচলকারী ট্রেনগুলো।

[৭] তাছাড়া আগামী কয়েক বছরে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে রেল যোগাযোগে যুগান্তকারী পরিবর্তন ঘটবে বলে মনে করা হচ্ছে। পদ্মা সেতু চালু হয়ে গেলে ঢাকা থেকে কলকাতা যেতে সময় লাগবে মাত্র তিন থেকে সাড়ে তিন ঘণ্টা। তা ছাড়া বনগাঁ লোকালকে পেট্রাপোল পর্যন্ত চালানোর পরিকল্পনা রয়েছে ভারতীয় রেলের। সে ক্ষেত্রে সীমান্ত পার হয়ে সরাসরি ট্রেনে উঠতে পারবেন বাংলাদেশ থেকে যাওয়া লোকজন।

  • সর্বশেষ