শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ আগস্ট, ২০২২, ০২:৫৪ রাত
আপডেট : ০৭ আগস্ট, ২০২২, ০২:৫৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

বাইবেল ও গীতা মুখস্ত করলে কমবে বন্দিদের সাজা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পাকিস্তানের কারাগারে বন্দি আসামিদের সাজা কমিয়ে দেয়ার অভিনব প্রস্তাব দিয়েছে দেশটির পাঞ্জাব প্রদেশের কারা কর্তৃপক্ষ। তবে এই প্রস্তাব শুধুমাত্র সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বন্দিদের জন্য। একাত্তর টিভি

কোন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের বন্দি যদি তাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ মুখস্থ করেন, সেক্ষেত্রে কমে যাবে সাজার পরিমাণ। পাঞ্জাব প্রদেশের স্বরাষ্ট্র বিভাগ এমন প্রস্তাবই পাঠিয়েছে মুখ্যমন্ত্রীকে।

প্রদেশের কারাগারে খ্রিষ্টান, হিন্দু এবং শিখ বন্দিদের জন্য তিন থেকে ছয় মাসের কারাদণ্ড শিথিল করার জন্য একটি সারাংশ পাঠিয়েছে। তাতেই ধর্মগ্রন্থ মুখস্ত করার প্রস্তাব রাখা হয়েছে।

এক সিনিয়র কর্মকর্তা জানান, খ্রিষ্টান ও হিন্দু বন্দিরা তাদের পবিত্র গ্রন্থ বাইবেল আর ভাগবত গীতা মুখস্ত করলে সাজার মেয়াদ কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

এক্ষেত্রে মেয়াদ শিথিল হতে পারে তিন থেকে ছয় মাস পর্যন্ত। আগ থেকেই মুসলিম বন্দিদের  কোরআন মুখস্থ করলে ছয় মাস থেকে দুই বছর পর্যন্ত সাজা কমিয়ে দেয়ার বিধান রয়েছে।

এই কর্মকর্তা আরো জানান, সবকিছু ঠিক থাকলে হিন্দু ও খ্রিষ্টান বন্দিদের সাজার মেয়াদ কমার বিষয় নির্দিষ্ট করা হবে স্বরাষ্ট্র বিভাগের তরফ থেকে।

উল্লেখ্য, গত মার্চ মাসে লাহোর হাইকোর্ট সংখ্যালঘু বন্দিদের সাজা কমার বিষয়ে পাঞ্জাব সরকারের কাছে একটি প্রতিবেদন পাঠায়।

যেখানে বলা হয়েছিল পাকিস্তান জেল বিধিমালা ১৯৭৮ এর বিধি ২১৫ এর অধীনে মুসলিমদের ছাড় দেয়া হয়েছে। সেক্ষেত্রে অন্যান্য ধর্মের বন্দিদেরও অনুরূপ ছাড়ের অনুরোধ করা হয়।

আবেদনকারী ছিলেন খ্রিষ্টান ধর্মের এক ব্যক্তি। বর্তমানে পাঞ্জাবে প্রায় ৩৪টি কারাগার রয়েছে, যেখানে সংখ্যালঘু বন্দিদের সংখ্যা প্রায় ১১৮৮ জন।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়