শিরোনাম
◈ আমি আওয়ামী লীগে ছিলাম, আছি ও থাকব: সোহেল তাজ ◈ রুশ তেল পরিশোধনের পর যুক্তরাষ্ট্রে রফতানি করছে ভারত, ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র ◈ মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত অপশক্তির ষড়যন্ত্র থেমে থাকেনি: জয় ◈ চকবাজারে পলিথিন কারখানায় আগুন নিয়ন্ত্রণে ◈ টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ◈ মডার্না-অ্যাস্ট্রাজেনেকা গ্রহীতারা দ্বিতীয় ডোজে পাবেন ফাইজার ◈ শ্বাসরোধ করেই সেই শিক্ষিকার মৃত্যু ◈ বাংলাদেশকে নিয়ে দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র চলছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রধান সুবিধাভোগী জিয়া: তথ্যমন্ত্রী ◈ জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করছেন শেখ হাসিনা: ওবায়দুল কাদের

প্রকাশিত : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৬:০৬ বিকাল
আপডেট : ০৭ জুলাই, ২০২২, ০৬:৩৯ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ক্লাসে আসেনি কোনও শিক্ষার্থী, বিবেকের দংশনে ৩৩ মাসের বেতন ফেরত দিলেন ভারতের শিক্ষক

রাশিদুল ইসলাম : মঙ্গলবার বেতনের টাকা বাবদ ২৩ লাখ ৮২ হাজার ২২৮ টাকার একটি চেক তুলে দিয়েছেন। ক্লাসে আসেনি কোনও শিক্ষার্থী, বিবেকের দংশনে ৩৩ মাসের বেতন ফিরিয়ে দিলেন শিক্ষক, নজিরবিহীন এই ঘটনার সাক্ষী থাকল বিহারের মুজাফফরপুরের নীতিশেশ্বর কলেজ! ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

২০১৯ সালে চাকরিতে যোগ দেন লালন কুমার। তারপর থেকেই করোনা মহামারীর কারণে স্কুল কলেজ কার্যত বন্ধ! দীর্ঘদিন করোনার দাপটে চলেছে অনলাইন ক্লাস। বিবেকের তাড়নায় নিজের ৩৩ মাসের বেতন ফিরিয়ে নজির গড়লেন বিহারের এই সহকারী অধ্যাপক।

মঙ্গলবার বিআর আম্বেদকর বিহার ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রারের হাতে বেতনের টাকা বাবদ ২৩ লাখ ৮২ হাজার ২২৮ টাকার একটি চেক তুলে দিয়েছেন। বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় লালন বাবু বলেন, শিক্ষার্থীদের না পড়িয়ে বেতনের টাকা নিতে বিবেক আমাকে বাঁধা দিয়েছে।

অনলাইন ক্লাসেও নামমাত্র শিক্ষার্থী ক্লাস করেছে। আমি শিক্ষা না দিয়ে বেতন নিলে সেটা আমার শিক্ষার মৃত্যু, তাই আমি নিজের ৩৩ মাসের বেতনের টাকার পুরোটাই আজ ফিরিয়ে দিয়েছি।

নীতিশেশ্বর কলেজ ১৯৭০ সালে স্বাধীনতা সংগ্রামী নীতিশেশ্বর প্রসাদ সিং প্রতিষ্ঠা করেন। ১৯৭৬ সাল থেকে বিআর আম্বেদকর বিহার ইউনিভার্সিটির সঙ্গে যুক্ত হয় এই কলেজ। বিআর আম্বেদকর বিহার ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার আর কে ঠাকুর এই পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, লালন কুমার যা করেছেন তা খুবই অস্বাভাবিক সেই সঙ্গে প্রশংসনীয়। আমি ইতিমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলেছি। কলেজের অধ্যক্ষের থেকে পুরো বিষয়টির একটি ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।

দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে হিন্দিতে স্নাতকোত্তর এবং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি এবং এমফিল সম্পন্ন করেছেন লালন কুমার।  পিজি বিভাগে স্থানান্তরের জন্য কিছুদিন আগেই তিনি আবেদন করেন।

কুমার বলেন যে কলেজে শিক্ষার কোনও পরিবেশ দেখিনি। আমি আমার বিবেকের কাছে দায়বদ্ধ। নীতিশেশ্বর কলেজে প্রায় ৩ হাজার ছাত্রছাত্রী রয়েছেন, যাদের মধ্যে প্রায় ১,১০০ পড়ুয়া হিন্দি অনার্স নিয়ে পড়াশুনা করছেন। এই বিষয়ে একজন অতিথি শিক্ষক ছাড়াও কলেজের একমাত্র নিয়মিত হিন্দি শিক্ষক কুমার।

কলেজে সব মিলিয়ে ৩১ জন শিক্ষক এবং অতিথি শিক্ষক রয়েছেন। মহামারীর আগেও কেন কলেজে শিক্ষার্থীরা অনুপস্থিত ছিল জানতে চাইলে কলেজের অধ্যক্ষ মনোজ কুমার এ ব্যাপারে কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

  • সর্বশেষ