শিরোনাম

প্রকাশিত : ০১ জুলাই, ২০২২, ০৮:০৬ রাত
আপডেট : ০১ জুলাই, ২০২২, ০৮:০৬ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

মিয়ানমারের সামরিক শাসকদের সঙ্গে স্বচ্ছন্দ চীন

ইমরুল শাহেদ: চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং যাই এ সপ্তাহের শেষ দিকে মিয়ানমার সফর করবেন। সেনা বাহিনী ক্ষমতা ছিনিয়ে নেওয়ার পর আঞ্চলিক বৈঠকের জন্য চীনের কোনো উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তার এটাই হলো প্রথম সফর। ইরাবতি

ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ শহর মান্দালয় অঞ্চলের বাগানে লানকাং-মেকং সহযোগিতার পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের এক বৈঠকে যোগ দেবেন ওয়াং যাই। তিনি এমন একটা সময়ে মিয়ানমার সফর করছেন, যখন জান্তা সরকার ক্ষমতাচ্যুত স্টেট কাউন্সিলর ও গণতন্ত্রের প্রবক্তা অং সান সুচিকে গৃহবন্দিত্ব থেকে একটি নির্জন কারাগারে স্থানান্তর করা হয়েছে। 

এই সময়টাতে প্রতিরোধ যোদ্ধারা দেশজুড়ে চীনা প্রকল্পগুলোর উপর হামলা চালিয়ে যাচ্ছে। মিয়ানমার সেনা বাহিনী বেসামরিক লোকদের হত্যা করছে এবং আশপাশের বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিচ্ছে।

সম্প্রতি সাগাইং অঞ্চলের চীনা মালিকানাধীন ওয়ানবাও মাইনিং কোম্পানিতে বিস্ফোরকের হামলা চালায় এবং কোম্পানির পাওয়ার ক্যাবল উড়িয়ে দেওয়া হয়। কোম্পানি থেকে এই হামলার নিন্দা জানানো হয়েছে। কিন্তু মাইনিং কোম্পানির চত্বরে সেনা অবস্থান নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

কয়েক প্রতিরোধ যোদ্ধা গ্রুপ চীনা কোম্পানিগুলোকে প্রকাশ্যে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে এবং সামরিক সরকারকে সমর্থন জানানোর জন্য চীনের নিন্দা  করেছে। এসব হট্টগোলের মধ্যেই প্রশিক্ষিত নিরাপত্তা গার্ড পাঠানোর বিষয়ে চীন আলোচনা করছে জান্তা সরকারের সঙ্গে। তারাই চীনা প্রকল্পগুলো রক্ষা করবে। 

শান রাজ্যের দুটি প্রধান চেকপয়েন্ট দিয়ে শত শত চীনা নাগরিক মিয়ানমারে প্রবেশ করছে। চীন-মিয়ানমার সীমান্তের কিছু কিছু সশস্ত্র গ্রুপ মনে করে, এসব চীনারা মিয়ানমারে প্রবেশ চীনা প্রকল্পগুলো রক্ষা করার জন্য। 

সফরের সময় চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী অভ্যুত্থান নেতা সি.-জে মিন অং হ্লাইংয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন এবং সুচির কারাগারে স্থানান্তর নিয়েও কথা বলবেন। তিনি মিয়ানমারে চীনা স্বার্থ সংরক্ষণের বিষয়েও কথা বলবেন।  

  • সর্বশেষ