শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৯ জুন, ২০২২, ১১:১৪ দুপুর
আপডেট : ২৯ জুন, ২০২২, ০১:৫৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যৌন অপরাধে ঘিসলাইন ম্যাক্সওয়েলের ২০ বছর কারাদণ্ড

giselle maxwell

রাশিদুল ইসলাম : জেফরি এপস্টেইনকে যৌন নির্যাতনে সহায়তা করায় ঘিসলাইন ম্যাক্সওয়েলকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে মার্কিন আদালত। নিজের প্রেমিক এপস্টেইনের জন্য তিনি চার তরুণীকে নিয়োগ এবং পাচার করেছিলেন। এদের কেউ কেউ ছিলেন অপ্রাপ্তবয়স্কা। সামাজিক ও রাজনৈতিকভাবে ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের মনোরঞ্জনের জন্যে এসব তরুণীদের পাঠাতেন জেফরি এপস্টেইন। গত বছরের ডিসেম্বর মাসে ম্যাক্সওয়েলের বিরুদ্ধে আনা এই অভিযোগ প্রমাণিত হয়। কারাদণ্ড ছাড়াও তাকে ৭ লাখ ৫০ হাজার ডলার জরিমানা করা হয়েছে। সিএনএন

ম্যাক্সওয়েলের সাবেক প্রেমিক জেফরি এপস্টেইনের বিরুদ্ধেও নারী পাচারের অভিযোগে বিচার শুরু হয়েছিল। ২০১৯ সালে ম্যানহাটানের একটি কারাগারে আত্মহত্যা করেন জেফরি। মার্কিন আদালত ৬০ বছর বয়স্ক ম্যাক্সওয়েলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা নারীরা আদালতের বাইরে জানিয়েছেন, ম্যাক্সওয়েলের আজীবন কারাগারে থাকা উচিৎ। 

১৯৯৪ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত নানাভাবে এপস্টেইনের অপরাধে সাহায্য করেছেন ঘিসলাইন ম্যাক্সওয়েল। তার অপরাধকে জঘন্য বলে মন্তব্য করেছে আদালত। যদিও ম্যাক্সওয়েলের আইনজীবী পাঁচ বছরের কম সময় কারাদণ্ডের আবেদন করেছিলেন। ২০২০ সালের জুলাই থেকেই কারাগারে ছিলেন ম্যাক্সওয়েল। তিনি ব্রুকলিনের মেট্রোপলিটন ডিটেনশন সেন্টারে আটক ছিলেন এতদিন। মার্কিন জেলা জজ আলিসন জে নাথান বলেন, ইউএস ডিস্ট্রিক্ট জজ অ্যালিসন জে নাথানের মতে, তিনি চেয়েছিলেন তার রায় একটি ‘নিশ্চিত বার্তা’ পাঠাতে যে এই ধরণের অপরাধের শাস্তি হবে। আদালতে প্রসিকিউটররা ম্যাক্সওয়েলের জন্য ৩০ থেকে ৫৫ বছর পর্যন্ত জেলের জন্য কঠোর সাজা দাবি জানান। 

আদালতে ম্যাক্সওয়েল বলেন, ‘জেফরি এপস্টাইনের সাথে দেখা হওয়া আমার জীবনের সবচেয়ে বড় অনুশোচনা’। তিনি তাকে একজন ‘চালবাজ, ধূর্ত এবং নিয়ন্ত্রণকারী মানুষ’ হিসাবেও বর্ণনা করেন। ম্যাক্সওয়েল ও জেফরির হাতে নির্যাতিতা তরুণীরা বলেছেন, তাদের হাতে যৌন নির্যাতনের পর তারা অনেকে হতাশ, জীবনের প্রতি বীতশ্রদ্ধ ও মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়