শিরোনাম
◈ লঞ্চের ভাড়া পুনর্নির্ধারণে বৈঠক আজ ◈ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জাতীয় পার্টির দুইদিনের কর্মসূচি ◈ সদরঘাটে দুই লঞ্চের চাপায় পড়ে ট্রলারযাত্রী নিহত ◈ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী আজ ◈ রাজধানীর শাহবাগে আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের হামলা, আহত ২০ (ভিডিও) ◈ রাজধানীতে পুলিশের গাড়ি ভাঙচুরের মামলায় জামায়াতের ৬ কর্মী গ্রেপ্তার ◈ হজে গিয়ে ভিক্ষা: অবশেষে জামিন পেলেন মতিয়ার ◈ মাঝিপাড়া হিন্দুপল্লীতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ৫১ আসামি কারাগারে ◈ পরিবারের ৪ জনই ভুয়া চিকিৎসক, করেন জটিল রোগের চিকিৎসা ◈ চলন্ত বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ, মূল পরিকল্পনাকারীসহ গ্রেপ্তার ১০

প্রকাশিত : ২৭ জুন, ২০২২, ০৩:৫০ দুপুর
আপডেট : ২৭ জুন, ২০২২, ০৩:৫০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পশ্চীম তীরে নির্মাণাধীন দেয়াল সুরক্ষায় ইসরায়েলের ‘ওয়াল ব্রিগেড’এর ‘শুট টু কিল’ নীতি 

রাশিদুল ইসলাম : পশ্চিম তীরে তৈরি করা দেয়াল সুরক্ষিত রাখতে ‘ওয়াল ব্রিগেড’ নামে ইসরায়েলের এই বিশেষ বাহিনী উঁচু ওই দেয়াল নির্মাণের কাজ বাধাহীন রাখতে ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ‘শুট টু কিল’ নীতি চালু করেছে। জেরুজালেম পোস্ট

ফিলিস্তিনি ন্যাশনাল ইনিশিয়েটিভ পার্টির মহাসচিব মুস্তফা বার্ঘুতি বলেন, এর একমাত্র উদ্দেশ্যে ফিলিস্তিনিদের হত্যা এবং নির্যাতন বৃদ্ধি করা। এই বছরের প্রথম থেকে অন্তত ৭০ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরায়েল। তাদের মধ্যে ১৬ শিশুও ছিল। তাদের সবাই সশস্ত্র ছিল না এবং ইসরায়েলের জন্য হুমকিও ছিল না। এই দেয়াল কোনো আন্তর্জাতিক সীমানায় না। এটি ইসরায়েলি সেনারা পশ্চিম তীরের মাটিতে নির্মাণ করেছে। 

এই কড়াকড়ির একমাত্র উদ্দেশ্য দ্রুত ওই দেয়াল নির্মাণের কাজ শেষ করা এবং ভবিষ্যতে এটিকে সুরক্ষিত রাখা। আরব নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে দুই সপ্তাহ আগে ইসরায়েলের ‘ওয়াল ব্রিগেড’ কাজ শুরু করেছে যার ৬টি ব্যাটালিয়নে ২১শ সদস্য রয়েছে। ৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ এই দেয়ালটির উচ্চতা ৭ মিটার। দক্ষিণ জেনিন থেকে শুরু করে পশ্চিম তীরের সীমান্ত ঘিরে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এর জন্য ইসরায়েলের ব্যয় হবে ১১০ মিলিয়ন ডলার।

পশ্চিম তীর থেকে হামলাকারীরা ইসরায়েলে প্রবেশ করে একাধিক হামলা চালিয়েছে। এই হামলার সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় দ্রুত এই দেয়াল নির্মাণ শেষ করতে চায় ইসরায়েল। ওয়াল ব্রিগেডের দায়িত্ব হচ্ছে এই দেয়ালকে নিরাপদ রাখা, যে অংশের কাজ এখনও বাকি আছে তা নির্মাণে নিরাপত্তা দেয়া এবং কিছু অংশ যা ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে তা পুনরায় নির্মাণ করা। ভাঙ্গা অংশ দিয়ে ফিলিস্তিনিরা চাইলেই ইসরায়েলে প্রবেশ করছে। 

ইসরায়েলী কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দিয়েছে ওই দেয়াল পাড় হওয়ার কেউ চেষ্টা করলে তাকে গুলি করা যাবে। আন্তর্জাতিক আইনেও এ ধরনের নিয়ম নেই। কেউ যদি অস্ত্রহীন অবস্থায় আন্তর্জাতিক সীমান্ত অতিক্রমের চেষ্টা করে তাহলে প্রথমে ফাকা গুলি করে তাকে সতর্ক করতে হবে। এরপরও না শুনলে তার পায়ে গুলি করা যাবে। কিন্তু গুলি করে হত্যা করা যাবে না কখনই। ইসরায়েলের এই আইন থেকেই বুঝা যায় যে, তারা ফিলিস্তিনিদের জীবনকে মূল্য দেয় না।

  • সর্বশেষ