Skip to main content

সংসদ উপনেতা ও উপদেষ্টা হিসেবেও নতুন মুখ দেখতে চাই

মন্ত্রিসভায় নতুন মুখের চমকের পর এবার সংসদ উপনেতা হিসেবেও এমন কাউকে দেখতে চাই যাকে নিয়ে মানুষ প্রশ্ন তুলবে না। এমন একাধিক ব্যক্তি খুঁজেপেতে প্রধানমন্ত্রীর সমস্যা হবে না। বর্তমান সংসদ উপনেতা সাজেদা চৌধুরী আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা। দুঃসময়ের কা-ারি। শেখ হাসিনার অকৃত্রিম শুভার্থী। কিন্তু তিনি এখন বয়সের ভারে ন্যুব্জ। তাকে এখন ভারমুক্ত করা দরকার। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। এলাকাবাসীকে নিয়েই তিনি তার শেষ সময়গুলো ভালো কাটান।  
বিভিন্ন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর বেশ কয়েকজন উপদেষ্টা রয়েছেন মন্ত্রীর পদমর্যাদায়। তারা হয়তো নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল। কিন্তু যে যুক্তিতে মন্ত্রিসভায় নতুন মুখের সমাহার ঘটেছে, সেই একই যুক্তিতে উপদেষ্টাম-লীতেও পরিবর্তন আনা দরকার। যারা দশ বছর একই দায়িত্বে আছেন বা আগেও ছিলেন, তাদেরও আর না রেখে সেখানেও আনা হোক উদ্যমী নতুন মুখ। এমন লোকও প্রধানমন্ত্রী সহজেই খুঁজে পাবেন। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার দক্ষ ও অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের দায়িত্ব দিলে প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য পূরণে তারা সহায়ক ভূমিকা রাখতে পারবেন। 
প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে দেখতে চাই একজন বিচক্ষণ রাজনীতিবিদকেই। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও তার রাজনৈতিক সহকারী হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন তরুণ রাজনৈতিক নেতা তোফায়েল আহমেদকে। অর্থ, বিদ্যুৎ, পররাষ্ট্র, স্বাস্থ্য এবং জনপ্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে সংশ্লিষ্ট বিষয়অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের নিয়োগ দিলে ভালো হবে। নির্বাচনের আগে কিছু বিশিষ্টজনের নাম সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে শোনা গিয়েছিলো। এবার তাদের বিষয়টি বিবেচনায় নেওয়া হলে খারাপ হবে না। পরিবর্তনটা সর্বত্র হলে সেটা সবার নজরে পড়বে। লেখক : গ্রুপ যুগ্ম সম্পাদক, আমাদের নতুন সময়