Skip to main content

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে সাকিবের কাছে মাশরাফির হার

দর্শকরা বিপিএলে যে ধরণের ম্যাচ দেখতে চান সেটাই আজ মঞ্চায়ণ হলো রংপুর ও ঢাকার মধ্যে। গত শনিবার থেকে শুরু হওয়া এই আসরে ৮টি ম্যাচের একটিতে উত্তেজনা ছিল না। নবম ম্যাচে রংপুর রাইডার্স আর ঢাকা ডায়নামাইটসের মধ্যকার ম্যাচটি ছিলো উত্তেজনায় ঠাসা। একবার জয়ের পাল্লা ঝুঁকে পড়ে রংপুরের অনুকুলে, আবার সেটা ঘুরে ঝুঁকে পড়ে ঢাকার শিবিরে। এভাবেই মঞ্চস্ত হলো দুই দলের সেনাদের সেরা পারফরমেন্স। 

শেষ পর্যন্ত শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটি জিতে গেলো সাকিব আল হাসানের ঢাকা ডায়নামাইটস। মাত্র ২ রানে মাশরাফির রংপুরকে হারিয়ে দেয় তারা। সেই সঙ্গে গত আসরের ফাইনালে রংপুরের কাছে পরাজয়ের প্রতিশোধও নিলো সাকিববাহিনী।  

বলা যায় এই ম্যাচকে ঘিরে প্রাণ ফিরেছে মিরপুর স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে। এদিন কানায় কানায় পূর্ণ ছিলো স্টেডিয়াম।
এদিন রংপুর রাইডার্স টসে জিতে ব্যাট করতে পাঠায় ঢাকা ডায়নামাইটসকে। ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে সোহাগ গাজীর বলে ব্যক্তিগত ১ রানের মাথায় বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন টানা দুই অর্ধশতক হাঁকানো হযরতুলল্লাহ জাযাই। এর পরের ওভারে ৮ রানে মাশরাফির বলে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সুনীল নারিন।
রংপুর বোলারদের তোপের মুখে সাকিব আর পোলার্ড মিলে ৩৫ বলে করেন ৭৮ রানের জুটি। সাকিব ৩৭ বলে ৩৬ করে লেগ বিফোরের ফাঁদে পরেন সাকিব।

পোলার্ড রান তুলতে থাকেন ঝড়ো গতিতে। ২৬ বলে ৬২ করে দলকে এনে দেন বড় রানের পুঁজি। শেষদিকে আন্দ্রে রাসেলের ১৩ বলে ২৩ রানে ভর করে ২০ ওভার শেষে ১৮৩ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডায়নামাইটস।

১৮৪ রানের বিশাল লক্ষ্য টপকাতে সবার চোখ ছিল ক্যারিবীয় ব্যাটিং দানব ক্রিস গেইলের উপর, কিন্তু হতাশ করে গেইল সাজঘরে ফেরেন ৮ রান করে। আরেক ওপেনার মেহেদী মারুফকে ব্যক্তিগত ১০ রানের মাথায় ফেরান আন্দ্রে রাসেল।
এরপর রিলে রুশো আর মোহাম্মদ মিঠুন মিলে করেন ৭৩ বলে ১২১ রানের জুটি। রুশোকে ফেরান আল ইসলাম। সাজঘরে ফেরার আগে ৮ চার আর চারটি ছয়ে ৪৪ বলে খেলেন ৮৩ রানের ইনিংস।

রুশোর বিদায়ের পর দ্রুত রান তুলতে থাকা মিঠুনকেও ব্যক্তিগত ৪৯ রানের মাথায় বিদায় করেন আল ইসলাম। একই ওভারে পর পর মাশরাফি আর ফরহাদ রেজাকে আউট করে এই আসরের প্রথম হ্যাটট্রিক করেন বাংলাদেশের সাভারের ছেলে আল ইসলাম। এদিন তিনি সেরা ক্রিকেটারের মুকুটটিও জয় করেন। আল ইসলামের হ্যাটট্রিক আর সুনীল নারিনের বোলিং তোপে শেষ পর্যন্ত ২ রানে হেরে যায় রংপুর রাইডার্স। ঢাকার হয়ে আল ইসলাম ৪টি আর সুনিল নারিন শিকার করেন ২ উইকেট।