Skip to main content

মহিলা সংস্থা, ইতালীর “পিঠা উৎসব

Article Highlights

এই ধরনের আয়োজনের ফলে পিঠার ঐতিহ্য টিকে আছে এবং প্রবাসেও ছড়িয়ে পড়ছে। আয়োজনটা একদিকে যেমন দেশের সেই পরিবারের আন্তরিকতার ছোঁয়া রয়েছে, তেমনি রয়েছে প্রবাসে বেড়ে উঠা প্রজন্মকে দেশীয় ঐতিয্য-সংস্কৃতিকে জানান দেয়ার মহৎ প্রয়াস।

পিঠা বাংলাদেশের সংস্কৃতি আর ঐতিহ্যের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাংলাদেশের উৎসব-আনন্দের সাথে মিশে আছে রকমারি পিঠার স্বাদ। সুদূর প্রবাসে এসেও দেশীয় ঐতিয্যের নানান স্বাদের পিঠার নিয়ে ইতালীর রোমে সচেতন নারীদের সংগঠন মহিলা সংস্থা, ইতালী পিঠা উৎসবের আয়োজনে করেছে ।

রসই রেষ্টুরেন্টে এ উৎসবে শোভা পাচ্ছিল ভাপা-পিঠা, চিতই, পুলি, পাটিসাপটা, নারিকেল তেলের আরো নানা ধরনের লোভনীয় পিঠা।
মহিলা সংস্থা, ইতালির সভাপতি শান্তা সিকদার এর সভাপতিত্বে ও সৈয়দা মাসুদা আক্তার এর সঞ্চালনায় অতিথি বৃন্দ আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সমিতি, ইতালীর সাবেক সভাপতি নূরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু, বিশিষ্ট সাংবাদিক হাসান মাহমুদ, বৃহত্তর ঢাকা সমিতির সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল মঞ্জু সহ বিভিন্ন নারী সংগঠনের নেত্রীবৃন্দ।

অতিথিরা বলেন, এই ধরনের আয়োজনের ফলে পিঠার ঐতিহ্য টিকে আছে এবং প্রবাসেও ছড়িয়ে পড়ছে। আয়োজনটা একদিকে যেমন দেশের সেই পরিবারের আন্তরিকতার ছোঁয়া রয়েছে, তেমনি রয়েছে প্রবাসে বেড়ে উঠা প্রজন্মকে দেশীয় ঐতিয্য-সংস্কৃতিকে জানান দেয়ার মহৎ প্রয়াস।
এসময় সংগঠনের সহ-সভাপতি জেসমিন সুলতানা মিরা, সাংগঠনিক সম্পাদক রুপালী গোমেজ ও উপদেষ্ঠা জামিলা মঞ্জুরী সহ সকল নেতৃবৃন্দ মনে করেন, সকলের সহযোগিতায় বিদেশী ও আমাদের প্রজন্মের কাছে দেশীয় ঐতিয্য পৌচ্ছে দিতে শুধু পিঠা উৎসবই নয়, আরো সুন্দর এবং বড় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলাদেশকে উপস্থাপন করতে সক্ষম হবো। এসময় তারা উপস্থিত সকলের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

অন্যান্য সংবাদ