Skip to main content

পরিবেশ দূষণে বিশেষ ভূমিকায় কল-কারখানার নিঃসৃত বর্জ্য

পরিবেশ দূষণে বিশেষ ভূমিকায় অবস্হান করছে কল-কারখানার বর্জ্য পদার্থ। এমন মন্তব্য করেছেন পরিবেশবিদসহ সমাজের সচেতন ব্যক্তিবর্গ।

এমন ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে সাভারের আশুলিয়ার বিভিন্ন স্হানে। এর বাস্তবতা পর্যবেক্ষণে যাওয়া হয় পাথালিয়া ইউনিয়নে অবস্হিত কয়েকটি পোষাক উৎপাদন মুখি ফ্যাক্টরি।   

পরিবেশ রক্ষার তোয়াক্কা না করেই নির্বিঘ্নে কেমিকেল মিশ্রিত তরল বর্জ্য নিঃসৃত করে যাচ্ছে বেশ কয়েকটি ফ্যাক্টরি। যাদেরকে এই কাজ করতে দেখা যায় তারা হলো- আড়ং ডেনিম লিঃ, স্টারলিং ডেনিম লিঃ, ইস্ট ওয়েস্ট গ্রুপ, বার্জার পেইন্ট লিঃ, বিশ্বাস গ্রুপ। 

উল্লেখিত ফ্যাক্টরি সমূহের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার চেস্টা করলে কোন প্রকার সাড়া পাওয়া যায়নি। শেষ পর্যন্ত চেস্টা করে কথা হয় আড়ং ডেনিম  লিঃ এর এজিএম শফিউরের সাথে।  তিনি জানান, আমরা কোন প্রকার পরিবেশ দূষণ করছিনা। আমাদের পানি ষোধানাগার(ইটিপি) রয়েছে এবং সলিড বর্জ্য প্রতিসরণের জন্যও রয়েছে বিশেষ জায়গা।

তার কথার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য ঘটনাস্হলে যেতে চাইলে শুরু করেন নানান প্রকার তাল বাহানা।  এক পর্যায় নিজেরাই ঘটনাস্হলে পৌছালে দেখা যায় তার চিত্র সম্পূর্ণই আলাদা।

নির্বিঘ্নে নিঃসৃত হচ্ছে কেমিকেল যুক্ত তরল বর্জ্য।

এবিষয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি পাথালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জনাব পারভেজ দেওয়ানের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার কাছে একাধিক অভিযোগ আসলে এ বিষয় নিয়ে ফ্যাক্টরি কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে তাদেরকে সতর্ক করি কিন্তু এতে কোন প্রকার লাভ হয়নি এবং তারা আমার কথা শোনেননি। তাদের এই কারনে পরিবেশের ব্যাপক ক্ষতিসাধন হচ্ছে। প্রতিনিয়ত পানির দূষণের পাশাপাশি বায়ু দূষণ করেই চলছে।

এই কারণে দূষিত হচ্ছে কয়েকটি ঐতিহ্যবাহী বিলের পানি যেমন, চারিগ্রাম বিল, কুরগাঁও বিল, গকুল নগর বিল, কাশিপুর বিল, রপ্তের বিল, সিন্দুরিয়া বিল।

শুধু তাই নয় এই সকল ফ্যাক্টরি কর্তৃক নিঃসৃত বর্জ্যের কারণে এলাকাবাসির নানা প্রকার সমস্যার পাশাপশি ব্যাপক পরিমানে ক্ষতিগ্রস্তও হচ্ছে। যেমন- আবাদি জমিতে আবাদ করতে পারছেনা এবং খাল বিলে মাছ চাষ করতে পারছেনা। এতে শুধু কৃষক বা চাষীরা নয় সরকারও রাজস্ব হারাচ্ছে। বিশেষ করে দেশী মাছের চাষ ব্যহত হচ্ছে প্রতিনিয়তই।  আমি এর শক্ত প্রতিকার চাই।

এবিষয়ে গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের সিনিয়র লেকচারার ড.নাজনীন পারভীনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, পরিবেশ আমাদের অমূল্য সম্পদ, পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব আমাদের নিজেদেরকেই নিতে হবে। যারা পরিবেশ নষ্ট করে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করে তারা দেশ ও সমাজের শত্রু।      

পানি দূষণ ও বায়ু দূষণের ব্যাপারে তিনি আরো বলেন, দূষিত পানিতে নানা প্রকার ব্যাকটেরিয়া ও ভাইরাস বিচরণ করে এই বিষাক্ত পানি শরীরে লাগলে বা ব্যবহার করলে নানা প্রকার রোগ বাসা বাঁধে দেহের বাহ্যিক এবং অভ্যন্তরে। যেমন চর্ম রোগ, বায়ু দূষণের কারণে বায়ুবাহী রোগের সৃস্টিও হয়।

এমনও দেখা গেছে সঠিক সময় চিকিৎসা সেবা গ্রহন না করায় অনেকের মৃত্যুও হয়েছে।