Skip to main content

ক্যান্সার জয়ের কাহিনী নিয়ে মনীষার বই

ক্যারিয়ার তুঙ্গে থাকার সময়ে শরীরে বাসা বাঁধা ক্যান্সার অভিনেত্রী মনীষা কৈরালাকে লম্বা সময়ের জন্য থমকে দিলেও তাকে আরও বেশি ‘লড়াকু’ করেছে, বদলে দিয়েছে।

চিকিৎসকদের দৃষ্টিতে দূরারোগ্য ব্যাধি ক্যান্সারে বেঁচে থাকার চেয়ে মৃত্যুর ঝুঁকিই বেশি ছিল মনীষার।পাঁচ বছরের চিকিৎসায় সেই লড়াই জয় করে তিনি ফিরে আসেন ভক্তদের মাঝে।

নব্বই দশকের তুমুল জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী মনীষা কৈরালা এরপর সেই যুদ্ধ জয়ের গল্প, জীবন-মৃত্যুর লড়াই থেকে জীবনের মূল্য উপলব্ধির কথা নিয়ে লিখতে শুরু করেন তার আত্মজীবনীমূলক বই।

অবশেষে প্রকাশ পেয়েছে সেই বই। বইটির নাম  ‘হিলড: হাউ ক্যানসার গেভ মি আ নিউ লাইফ’। মঙ্গলবার বিকালে ভারতের মুম্বাইয়ে হোটেল ‘দ্য তাজ ল্যান্ডস এন্ডে’ বইটির প্রকাশনা অনুষ্ঠান হয়। মোড়ক উন্মোচন করা হয় বইয়ের। প্রকাশনা উৎসবে মনীষার পরিবার, ও বন্ধু-বান্ধবরা উপস্থিত ছিলেন। 

তাছাড়াও, রেখা, অনুপম খের, জ্যাকি শ্রফ, ভাগ্যশ্রী, মহেশ ভাট, ইমতিয়াজ আলি, দিয়া মির্জা সহ ইন্ডাস্ট্রির বহু বন্ধুই মনীষার পাশে দাঁড়িয়েছেন। বইটি লিখতে মনীষাকে সহযোগিতা করেন নীলম কৌর। আর ‘পেঙ্গুইন র্যা ন্ডম হাউস ইন্ডিয়া’ বইটি প্রকাশ করে।

‘নেপালিকন্যা’ মনীষা কৈরালা ২০১২ সালে ওভারিয়ান ক্যানসারে আক্রান্ত হন। দীর্ঘ চিকিৎসার পর তিনি এখন ক্যানসারমুক্ত। প্রকাশনা অনুষ্ঠানে মনীষা বলেন,“আমি নিজের গল্প বলতে চেয়েছিলাম। নিজেকে এবং ক্যানসার আক্রান্ত অন্যদের সাহস জোগাতে চেয়েছিলাম। সে কারণেই বইটি লিখেছি।”

নিজের অনুভূতি বর্ণনা করে তিনি বলেন, অতীতের সেই সময়কে ফিরে দেখা খুব কষ্টের। সবকিছু এখনো স্পষ্ট মনে আছে। মাঝেমধ্যে ভাবতাম, বইটি হয়ত শেষ করতে পারব না।আবার মনে হতো, এটি লেখা ঠিক হচ্ছে না।’

গত ১০ নভেম্বর ঢাকার বাংলা একাডেমিতে আয়োজিত ঢাকা লিট ফেস্টের মঞ্চে দাঁড়িয়েই মনীষা জানিয়েছিলেন, জানুয়ারিতে মুম্বাইয়ে তার আত্মজীবনীমূলক বই প্রকাশ করা হবে। 

বইটি নিয়ে তিনি বলেন,  “নিজের জীবনের নানা কথা, অভিজ্ঞতা, সফলতা, ব্যর্থতা বইটিতে তুলে ধরেছি। দাম্পত্য জীবনে আমার ব্যর্থতার কথাও আছে। স্ত্রী হিসেবে আমি কতটা ব্যর্থ, সে কথা জানবে পাঠক।”

২০১০ সালে নেপালের ব্যবসায়ী সম্রাট দাহালকে বিয়ে করেছিলেন মনীষা। দুই বছর পর ভেঙে যায় সংসার। সে সময়ই এক পরীক্ষায় ধরা পড়ে তার ক্যান্সার।